বইমেলা ২০২০ – সাড়া জাগানো ৬ টি কবিতার বই

সেরা ৬টি বই

একজন কবির আবেগ-অনুভূতি, উপলব্ধি ও চিন্তা, যা উপমা-উৎপ্রেক্ষা-চিত্রকল্পের সাহায্যে সৃষ্টি করতে শব্দ প্রয়োগের ছান্দসিক বাক্যবিন্যাস করা হয়, তাকে কবিতা বা পদ্য বলে। কাঠামোর দিক থেকে কবিতা বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে। যুগে যুগে কবিতার এসকল কাঠামোতে এসেছে নানা রকম পরিবর্তন। বর্তমানে আমরা যে ধরনের কবিতার বই দেখতে পাই সেগুলো হলো- চতুর্দশপদী, লিমেরিক, হাইকু, রুবাই, সিজো, শব্দকবিতা, গদ্য কবিতা ইত্যাদি। কবিতার এসকল ছন্দেও রয়েছে নানা রকম বিন্যাস।

সাহিত্যের আদিমতম একটি শাখা হলো কবিতা। বিশ্ববিখ্যাত দার্শনিক অ্যারিস্টটল বলেছেন,

‘কবিতা দর্শনের চেয়ে বেশি, ইতিহাসের চেয়ে বড়’। আবার, শেলির মতে, ‘কবিতা পরিতৃপ্তির বিষয়। কবিতা তখনই সার্থক হয়, যখন কবি মনের পরিতৃপ্তিতে পূর্ণতা আসে’।

কবিতা মানুষের চিত্তাকর্ষও সাধন করে।

বাংলা সাহিত্যেও এই কবিতা বা কবিদের ইতিহাস নেহায়েত কম নয়। বাংলা সাহিত্যের বিখ্যাত কবিদের মধ্যে রয়েছেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলামরুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ, আহসান হাবীব, বুদ্ধদেব বসু, কবি সুফিয়া কামাল, কবি কায়কোবাদ, হেলাল হাফিজ, রুদ্র গোস্বামী প্রমুখ। আজ আলোচনা করা হবে ২০২০ একুশে বইমেলায় সাড়া জাগানো ৬টি কবিতার বই নিয়ে।

কবিতার বই - বেদনাকে বলেছি কেঁদো না
BUY NOW

বেদনাকে বলেছি কেঁদো না

“তোমাকে শোনাবো এক পরাজিত মানুষের কাহিনী”- (হেলাল হাফিজ, জয় )।

কিন্তু এখন যার কথা বলা হচ্ছে তিনি মোটেও পরাজিত কেউ নন, বরং বাংলাদেশের লাখো তরুণ এবং প্রবীণ মানুষের মনে জায়গা করে নেয়া একজন কবি। তিনি হেলাল হাফিজ, যিনি বাংলা সাহিত্যের বর্তমানে বেশ বিখ্যাত একজন কবি। ২০১৩ সালে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কারে ভূষিত হওয়া এই কবির এখন পর্যন্ত দু’টি কবিতার বই প্রকাশিত হয়েছে। সর্বশেষ ২০১৯ সালে তার প্রকাশিত হওয়া কবিতার বই ‘বেদনাকে বলেছি কেঁদো না‘।

দিব্য প্রকাশ থেকে প্রকাশিত এই বইয়ে স্থান পাওয়া কবিতাগুলোর মাঝে ব্রহ্মপুত্রের মেয়ে, দেয়াল, স্রোতস্বিনী ভালোবাসা, মরনের পাখা, জয় ইত্যাদি বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। বইটির সকল কবিতাই প্রায় প্রেম এবং বিরহ সংক্রান্ত। বইটির বিভিন্ন কবিতার লাইন দিয়েই এর প্রকাশ ঘটে। যেমন-

“এক জীবনের সব হাহাকার বুকে নিয়ে
অভিশাপ তোমাকে দিলাম”

আবার,

“আমি না, আমারও না
এ দেয়াল তোমার রচনা।”

কবিতার বই - তোমাকে দেখার অসুখ
BUY NOW

তোমাকে দেখার অসুখ

“রাতের আকাশ জানে, একাকী সে তারা, একাকী খসে পড়ে, খসুক

নির্ঘুম রাত জানে, চোখের পাতায় জমে, তোমাকে দেখার অসুখ।”

এই লাইনগুলো থেকেই বোঝা যাচ্ছে যে, কবিতার বইটির নাম কী হতে পারে! হ্যাঁ, আর কিছু নয়, কবিতার বইটি হলো ‘তোমাকে দেখার অসুখ’। সাদাত হোসেন এর লেখা এই বইটি প্রকাশিত হয়েছে এ বছর। খুব অল্প বয়সেই বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য পুরস্কারপ্রাপ্ত এই লেখক তার কল্পনাশক্তির মাধ্যমে পৌঁছে যেতে পারেন পাঠকদের মনের খুব কাছে। ছোট ছোট সরল বাক্য এবং ছন্দের অন্ত্যমিলে রচিত এই কবিতাগুলো পাঠকদের জীবনের সাথে যেন মিলে যায়।

অন্যধারা থেকে প্রকাশিত এই কবিতার বইটিতে লেখক ভূমিকার সময়ই জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি দিনে আর রাতে নন, বরং তার মন যখন অনেক ভালো থাকে অথবা যখন খুব খারাপ থাকে তখন তিনি লেখেন। আর তাই ছোট ছোট এই কবিতাগুলো বা বলা যায় ছোট ছোট এই পঙক্তিগুলোতে রয়েছে তার আনন্দ ও বেদনার অনুভূতির সংমিশ্রণ। আর এই কবিতার বইটি হলো ফেসবুকে বিভিন্ন সময়ে তার ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা পঙক্তিমালার চতুর্থ সংকলন।

কবিতার বই- দেহবন্টনবিষয়ক দ্বিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষর
BUY NOW

দেহবন্টনবিষয়ক দ্বিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষর

এবারের বইমেলায় প্রকাশিত কবিতার বইগুলোর মাঝে বেশ সাড়া জাগিয়েছে মারজুক রাসেল রচিত ‘দেহবন্টনবিষয়ক দ্বিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষর’ বইটি। এর আগে তার আরো চারটি কবিতার বই প্রকাশিত হলেও এবারের বইটি পাঠকসমাজে অনেক বেশি আলোচনার জন্ম দিয়েছে। ৮০টি কবিতা সম্বলিত এই বইটিতে কবিতার প্রকাশভঙ্গি এবং লেখনীতে রয়েছে ভিন্নতা। কিছু কিছু শব্দের আঞ্চলিকতা প্রবলভাবে লক্ষ্যণীয়। বইটিতে স্থান পাওয়া কবিতাগুলোর মাঝে রয়েছে কৈশোর, বৈবাহিক অবস্থা: বিবাহিত অবিবাহিত, ভিটামিন শি, গ্রামীণ চেক, ডাইনিং স্পেস, ৩৬-২৪-৩৬ ইত্যাদি।

কবিতার বই - কিছু বইয়ের নাম থাকে না
BUY NOW

কিছু বইয়ের নাম থাকে না

কিছু বইয়ের নাম থাকে না। আর এই নাম না থাকা বইটিই যে এবার সাড়া ফেলে দিয়েছে বই মেলা জুড়ে। হ্যাঁ, আমরা এখানে আলোচনা করছি তবীব মাহমুদের কবিতার বই ‘কিছু বইয়ের নাম থাকে না‘ নিয়ে। ব্ল্যাকবোর্ড প্রকাশনায় এই বইটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছে এবারের বইমেলায়। বর্তমান সময়ে তিনি একজন খ্যাতিমান কবি ও লেখক। তার রচিত গান আগে থেকেই জনপ্রিয় ছিল। ইতিমধ্যেই পাঠকমহলে তিনি বেশ সমাদৃত। তার কবিতা ও লেখনীকে অনেকেই জ্বালাময়ী ও উদ্দীপনামূলক বলে আখ্যায়িত করছেন। পাঠকমহলে অনেকে আবার তাকে বলছেন বর্তমান সময়ের নজরুল। কারণ, তার কলমের মাধ্যমে কবিতা ঝরে পড়ে আগুনের মতো তেজস্বী হয়ে।

কবিতার বই- আপত্তি সত্ত্বেও
BUY NOW

আপত্তি সত্ত্বেও

মোহাম্মদ আল মাসুম মোল্লা ওরফে আল মাসুম। এবারের বইমেলায় সাড়া জাগানো অন্যতম একটি কবিতার বই হলো ‘আপত্তি সত্ত্বেও’। বর্তমান সময়ে সামাজিক অনেক দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে তার লেখার তুলনা নেই। বিষয়টি আরো স্পষ্ট হয় তার বইয়ের কবিতাগুলোর দিকে তাকালে। কোনোটির নাম দিয়েছেন ডেঙ্গু, কোনোটির নাম মানুষ, কোনোটি ভোট কাব্য, আবার কোনোটি সাকিব

সব্যসাচী চক্রবর্তীর কন্ঠে এই বইয়ের কবিতা শুনুন

প্রায় ২০টি কবিতাসম্মৃদ্ধ এই বইটির সবক’টি কবিতাই হলো বাংলাদেশের খুবই সাম্প্রতিক সময়ের সমস্যাগুলোর তীব্র সমালোচনা। সামাজিক সমস্যাগুলোকে কীভাবে শব্দ ও ছন্দের মাধ্যমে পুঙ্খানুপুঙ্খরূপে তুলে ধরা যায় তার আরেক অনবদ্য নিদর্শন হলো এই কবিতার বইটি।

“তিস্তা কান্দে পানির জন্য
পানির খোঁজে মানুষ হন্য।”

এমনই সহজ শব্দ এবং ছন্দের অন্তরালে আল মাসুম তুলে ধরেছেন বাংলাদেশের নানা সংকট এবং সামাজিক ও রাজনৈতিক সমস্যাগুলো, যা এবারের তরুণ প্রজন্মের কাছে বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।

কবিতার বই - অশ্রু তুমি চিবুকেই হও শেষ
BUY NOW

অশ্রু তুমি চিবুকেই হও শেষ

এবারের বইমেলায় প্রকাশিত আরেকটি বই হলো ‘অশ্রু তুমি চিবুকেই হও শেষ’। এটি মূলত একটি যৌথ কাব্যগ্রন্থ, যা তিনজন লেখক লিখেছেন এবং সম্পাদনা করেছেন ইমতিয়াজ আহমেদ। এছাড়াও অন্য দুজন লেখক হলেন আজিজুল হক ওয়াসিম এবং রফিকুল ইসলাম রাজা। তিনজন লেখকেরই কবিতার মূল উপজীব্য বিষয় হলো প্রেম, বিরহ এবং জীবনের নানা অনুষঙ্গ। আজিজুল হক ওয়াসিমের কবিতাগুলোর মধ্যে অন্যতম নিখোঁজ, আহারে!, অভিমান মুছে যাক, কি লাভ অভিমানে? ইত্যাদি। ইমতিয়াজ আহমেদের রয়েছে ল্যাম্পপোস্ট, সুখ ইত্যাদি, এবং রফিকুল ইসলাম রাজার এসো প্রিয়তমা!, স্বপ্নময় দিন, অভিনয় ইত্যাদি।

Rokomari Editor

Rokomari Editor

Published 05 Dec 2018
Rokomari is one of the leading E-commerce book sites in bangladesh
  0      0
 

comments (0)

Leave a Comment

You May Also Like This Article

Rokomari-blog-Logo.png