যুগান্তকারী ১০ জন নোবেল বিজয়ীর গল্পকথা

25

362

যুগান্তকারী ১০ জন নোবেল বিজয়ীর গল্পকথা

  • 0
  • #অন্যান্য
  • Author: rokomari
  • Share

বিশ্ববিদ্যালয় শুরু করার আগে একটু অনুপ্রেরণার প্রয়োজন রয়েছে কি? নোবেল বিজয়ীদের মধ্যে প্রায় সবাই এক সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাজীবন সম্পন্ন করে পরবর্তীতে নিজেদের কর্মগুণে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশ্বখ্যাতি লাভ করেন। আমাদের প্রাত্যহিক জীবনকে আরো সুন্দর, গতিশীল হওয়ার পেছনে তাদের সুদীর্ঘ সাধনার ভূমিকা রয়েছে। স্বাস্থ্য, বিশ্বশান্তি, অর্থনৈতিক বৈষম্য হ্রাসকরণ ইত্যাদি ক্ষেত্রে তাদের অবদান চির স্মরণীয়। বর্তমান প্রবন্ধে ১০ জন গুণী নোবেল বিজয়ীর সংক্ষিপ্ত পরিচয় তুলে ধরা হলো।

 ১০ জন নোবেল বিজয়ী- মারি গেল-ম্যান
মারি গেল-ম্যান (১৯২৯ – ২০১৯)

১. মারি গেল-ম্যান (১৯২৯ – ২০১৯)

মারি গেলম্যান যুক্তরাষ্ট্রের একজন পদার্থবিজ্ঞানী। ১৯৬৯ সালে এলিমেন্টারি পার্টিকল তত্ত্বের জন্য তিনি নোবেল পুরস্কার অর্জন করেন। ১৯৪৮ সালে ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিজ্ঞানে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৫১ সালে এমআইটি থেকে একই বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৫২ থেকে ১৯৫৩ সাল পর্যন্ত তিনি ইলিনয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবানা-চেম্পেইন-এ ভিজিটিং রিসার্চ অধ্যাপক ও কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটিং সহযোগী অধ্যাপক ছিলেন। ১৯৫৪ থেকে ১৯৫৫ সাল পর্যন্ত তিনি শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

 ১০ জন নোবেল বিজয়ী- ফ্র্রাঙ্ক অ্যান্থোনি উইলজেক
ফ্র্রাঙ্ক অ্যান্থোনি উইলজেক (১৯৫১ – ২০১৮)

২. ফ্র্রাঙ্ক অ্যান্থোনি উইলজেক (১৯৫১ – ২০১৮)

ফ্রাঙ্ক অ্যান্থোনি উইলজেক একজন আমেরিকান পদার্থবিজ্ঞানী ও গণিতবিদ। ১৯৫১ সালে নিউইয়র্ক শহরে তিনি জন্মগ্রহণন করেন। ১৯৭০ সালে শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগ থেকে বিএসসি ডিগ্রি লাভ করেন। পরবর্তীতে প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ও পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। উইলজেক এমআইটি সেন্টার ফর থিয়োরিটিক্যাল ফিজিক্স থেকে হার্মেন ফ্যাশবেক প্রফেসরশীপ পদক লাভ করেন। ২০০৪ সালে সহকর্মী ডেভিড গ্রুস ও এইচ ডেভিড পলিটজারের সঙ্গে উইলজেক পদার্থবিজ্ঞানে থিয়োরি অব দ্যা স্ট্রং ইনটেরেকশনে অ্যাসিম্পটটিক ফ্রীডম আবিষ্কারের জন্য নোবেল পুরস্কার লাভ করেন।

১০ জন নোবেল বিজয়ী- লিনাস পোলিং
লিনাস পলিং (১৯০১ – ১৯৯৪)

৩. লিনাস পলিং (১৯০১ – ১৯৯৪)

যুক্তরাষ্ট্রের রসায়নবিদ। শান্তিকর্মী ও লেখক। লিনাস পোলিং চিকিৎসাবিজ্ঞান গবেষণার উন্নতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। তিনি মলকিউলার বায়োলজি ও কোয়ান্টাম রসায়নবিদ্যার অন্যতম একজন প্রতিষ্ঠাতা। ১৯২৫ সালে ক্যালিফোর্নিয়া ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (ক্যালটেক) থেকে দৈহিক রসায়নবিদ্যা এবং গণিত-পদার্থবিজ্ঞান নিয়ে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি একমাত্র অবিভাজ্য দুটি নোবেল পুরস্কার অর্জন করেছেন। ১৯৫৪ সালে রসায়নে এবং ১৯৬২ সালে শান্তিতে নোবেল পুরস্কারে ভূষিত হন।

১০ জন নোবেল বিজয়ী-জন স্টেইনবেক
জন স্টেইনবেক (১৯০২-১৯৬৮)

৪. জন স্টেইনবেক (১৯০২-১৯৬৮)

আমেরিকান ঔপন্যাসিক জন স্টেইনবেক তার ‘দ্য গ্র্যাপস অব র‌্যাথ’ (১৯৩৭) উপন্যাসের জন্য পুলিৎজার পুরস্কার পেয়ে খ্যাতি অর্জন করেন। উক্ত বইয়ে তিনি গ্রেট ডিফ্রেশনের (১৯৩০-এর দশকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে অর্থনৈতিক ধ্বস শুরু হয়ে, যা বিশ্বের সকল দেশে প্রভাব ফেলেছিলো) উদ্বাস্তুদের দুঃখ-দুর্দশার চিত্র তুলে ধরেছেন। তিনি স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি সাহিত্যে পড়াশোনা করেন। স্নাতক সম্পন্ন না করে ১৯২৫ সালে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় ত্যাগ করেন। তার অন্যান্য উল্লেখযোগ্য সাহিত্যকর্ম হলো অব মাইচ অ্যান্ড ম্যান (১৯৩৭) ও ইস্ট অব ইডেন (১৯৫২)। ১৯৬২ সালে বাস্তব, কল্পনাপ্রবণ লেখার সঙ্গে সহানুভূতিশীল মেজাজ ও সুতীক্ষ্ণ সামাজিক প্রত্যক্ষণের অসাধারণ সংযোগ সাধনের জন্য সাহিত্যে তিনি নোবেল পুরস্কার লাভ করেন।

জন স্টেইনবেক এর বিখ্যাত সকল বই কিনতে ক্লিক করুন

১০ জন নোবেল বিজয়ী-চার্লস কে কাও
চার্লস কে কাও (১৯৩৩ – ২০১৮)

৫. চার্লস কে কাও (১৯৩৩ – ২০১৮)

চার্লস কে কাও ১৯৩৩ সালে চীনে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ‘ফাদার অব ফিভার কমিউনিকেশন’ এর জন্য বিখ্যাত। যুক্তরাজ্যের উলউইচ পলিটেকনিক (বর্তমানে গ্রীনউইচ বিশ্ববিদ্যালয়) থেকে ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে বিএসসি ডিগ্রি অর্জন করেন। গবেষণার সঙ্গে বুঝাপড়া করতে যেয়ে ১৯৬৫ সালে ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডন (ইউসিএল) থেকে ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৮৭ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যান্ত তিনি হংকং-এর চাইনিজ ইউনিভার্সিটির উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে তিনি লন্ডনের ইম্পোরিয়াল কলেজের ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ৬ মাস গবেষণাকর্মে সম্পৃক্ত ছিলেন। ২০০৯ সালে দৃষ্টিসংশ্লিষ্ট যোগাযোগ তন্তুর মধ্যদিয়ে আলোর প্রতিসরণ-এর জন্য তিনি পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন।

 ১০ জন নোবেল বিজয়ী-জন গ্যালসোর্থি
জন গ্যালসোর্থি (১৮৬৭-১৯৩৩)

৬. জন গ্যালসোর্থি (১৮৬৭-১৯৩৩)

জন গ্যালসোর্থি একজন ইংরেজ ঔপন্যাসিক ও নাট্যকার। ১৯৩২ সালে তাঁর ‘দ্য ফরসাইট সেজ’ গ্রন্থে ব্যাখ্যার শৈল্পিক চরম উৎকর্ষতার জন্য সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। বইটি ১৯০৬ ও ১৯২১ সালের মধ্যে প্রকাশিত হয়। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন এবং ১৯২৬ সালে এই বিভাগ থেকে সম্মানীয় ফেলো নির্বাচিত হন। অ্যান্ড্রস ইউনিভার্সিটি (১৯১২), ম্যানচেস্টার (১৯২৭), ডাবলিন (১৯২৯), ক্যামব্রিজ (১৯৩০), শেফিল্ড (১৯৩০), অক্সফোর্ড (১৯৩১) ও প্রিন্সটন (১৯৩১) ইউনিভার্সিটি থেকে অনারারি ডিগ্রি লাভ করেন।

 ১০ জন নোবেল বিজয়ী-হেনরি এ. কিসিঞ্জার
হেনরি এ. কিসিঞ্জার (১৯২৩- )

৭. হেনরি এ. কিসিঞ্জার (১৯২৩- )

হেনরি এ. কিসিঞ্জার যুক্তরাষ্ট্রের একজন রাষ্ট্রদূত। রিচার্ড নিক্সনের মন্ত্রীসভায় তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৭৩ সালে ভিয়েতনাম যুদ্ধের শান্তি স্থাপনে অবদানের জন্য নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। ১৯৪৩ সাল পর্যন্ত নিউইয়র্কের সিটি কলেজে হিসাববিজ্ঞানে অধ্যয়ন করেন। এসময় তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীতে যোগদানের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন এবং পরবর্তীতে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক পর্যায়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ে অধ্যয়ন করার উদ্দেশ্যে ফিরে আসেন। ১৯৫১ ও ১৯৫৪ সালে যথাক্রমে তিনি স্নাতকোত্তর ও পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন।

হেনরি এ. কিসিঞ্জার এর বিখ্যাত সকল বই কিনতে ক্লিক করুন

 ১০ জন নোবেল বিজয়ী-আলেক্সানডার ফ্লেমিং
আলেক্সানডার ফ্লেমিং (১৮৮৮ -১৯৫৫)

৮. আলেকজান্ডার ফ্লেমিং (১৮৮৮ -১৯৫৫)

আলেকজান্ডার ফ্লেমিং পেশাজীবনে ছিলেন একজন ডাক্তার। তার উল্লেখযোগ্য আবিষ্কারের মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিবায়োটিক- পেনিসিলিন। এই ঔষধটি মানবজীবনে রোগের গতিপথই পরিবর্তন করে দেয়। এরই মধ্যদিয়ে তিনি চিকিৎসা সেবার ইতিহাসে একজন গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় হয়ে আছেন। ১৯৪৫ সালে ফ্লেমিং, চেইন ও ফ্লোরি চিকিৎসা ক্ষেত্রে অবদানের জন্য নোবেল পুরস্কারে ভূষিত হন। ১৯০৬ সালে ফ্লেমিং সেন্ট মেরী হাসপাতাল মেডিকেল স্কুল থেকে এমবিবিএস ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৪৮ সালে তিনি লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাকটেরিওলোজির ইমেরিটাস অধ্যাপক নির্বাচিত হন। ১৯৫১ সালে এডিনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ বছরের জন্য রেক্টর হিসেবে নির্বাচিত হন।

 ১০ জন নোবেল বিজয়ী-এডওয়ার্ড ভিক্টর অ্যাপ্লেটন
এডওয়ার্ড ভিক্টর অ্যাপ্লেটন (১৮৯২-১৯৬৫)

৯. এডওয়ার্ড ভিক্টর অ্যাপ্লেটন (১৮৯২-১৯৬৫)

এডওয়ার্ড ভিক্টর অ্যাপ্লেটন একজন ইংরেজ পদার্থবিজ্ঞানী। ১৯৪৫ সালে আয়োনোস্পিয়ারের আবিষ্কার প্রমাণ এবং রেডিও প্রবাহ-প্রচার বুঝতে ভূমিকা রাখার জন্য পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। তিনি লন্ডনের কিংগ কলেজের অধ্যাপক (১৯২৪-১৯৩৬) ছিলেন। ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাকৃতিক দর্শনের (১৯৩৬-১৯৩৯) অধ্যাপক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৪৯ থেকে ১৯৬৫ সালে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি এডিনবাগ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ও উপাচার্য ছিলেন।

 ১০ জন নোবেল বিজয়ী-কফি আনান
কফি আনান (১৯৩৮ – ২০১৮ )

১০. কফি আনান (১৯৩৮ – ২০১৮ )

ঘানার কূটনীতিজ্ঞ। জাতিসংঘের সপ্তম সেক্রেটারি জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন (১৯৯৭ – ২০০৬)। ২০০১ সালে জাতিসংঘের সঙ্গে একত্রে তিনি শান্তিতে নোবেল পুরস্কারে সম্মানিত হন। সুইজারল্যান্ডের জেনেভার গ্রাজুয়েট ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজ-এর আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ে ডিইএ ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। পরবর্তীতে স্নাতকোত্তর পড়ার উদ্দেশ্যে এমআইটি সোলান স্কুল অব ম্যানেজমেন্টে সোলান ফেলো প্রোগ্রামে অধ্যয়ন করেন।

কফি আনান এর বিখ্যাত বই “Interventions: A Life in War and Peace” কিনতে ক্লিক করুন

নতুন প্রকাশিত সকল অনুবাদ বই দেখুন

আরও পড়ুনঃ 

বিল গেটস এর মতে সাফল্যের ৮ মূলমন্ত্র !

এ পি জে আবদুল কালাম-একজন সৎ রাষ্ট্রপতির গল্প

Write a Comment

Related Stories