জীবনের দৃষ্টিভঙ্গি বদলে দেয়ার মত ১০ জনের জীবনী

35

1697

জীবনের দৃষ্টিভঙ্গি বদলে দেয়ার মত ১০ জনের জীবনী

  • 0
  • #অন্যান্য
  • Author: rokomari
  • Share

বিখ্যাত এই ১০ জনের জীবনী আপনার জীবন পুরোপুরি পাল্টে দিতে পারে ! অল্পতেই হতাশ হবার স্বভাব অনেকেরই আছে। থাকাটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। কিন্তু সেটাকে আঁকড়ে ধরে জীবনকে শেষ করে দেওয়াটা হচ্ছে বোকামি। পৃথিবীতে এমন অনেকের ঘটনা আছে যারা হতাশাকে জয় করে নিজেকে প্রমাণ করতে পেরেছেন। হয়েছেন জগৎখ্যাত। আজকের আয়োজনে সেই ১০ জনের জীবনী -ই তুলে ধরা হল যাঁদের সম্পর্ককে জেনে নিলে আপনিও আপনার হতাশাকে পাশ কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন।

০১।  নেলসন ম্যান্ডেলা

ছিলেন জেলের আসামী। এএনসি সশস্ত্র সংগ্রাম শুরু করলে সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্রের অভিযোগে ১৯৬২ সালের ৫ আগস্ট তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। বিচারে যাবজ্জীবন সাজা হয়। শুরু হয় দক্ষিণ আফ্রিকার কুখ্যাত রুবেন দ্বীপে তাঁর দীর্ঘ কারাজীবন। প্রায় ২৭ বছর কারাভোগের পর আন্তর্জাতিক চাপে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরবর্তীতে তিঁনি সেই দেশের প্রেসিডেন্ট হন এবং শান্তিতে নোবেল পুরস্কার জেতেন।

০২।  লিওনার্দো দা ভিঞ্চি

শব্দ ঠিকমত লিখতে পারতেন না। উল্টো করে লিখতেন। পড়ালেখা তো একদমই করতেন না। কিন্তু তাঁর আঁকা মডেল দেখেই উড়োজাহাজ আবিস্কার করা হয়েছে। জগৎখ্যাত চিত্রকর্ম ‘মোনালিসার’ও জনক তিঁনি।

০৩।  পাবলো পিকাসো 

শব্দের খেলা তিঁনি বুঝতেন না। অথচ এই ব্যক্তিই হয়েছিলেন একজন কবি, লেখক, পেইন্টার, কেমিস্ট, স্টেজ ডিজাইনার, ভাস্কর।

০৪।  স্টিভ জবস

ছিলেন পিতৃপরিচয়হীন। থাকার কোনো রুম ছিল না তাঁর। ঘুমাতেন বন্ধুদের রুমের ফ্লোরে। ব্যবহৃত কোকের বোতল ফেরত দিয়ে পাঁচ সেন্ট করে কামাই করতেন, যেটা দিয়ে খাবার কিনতেন। প্রতি রোববার রাতে তিনি সাত মাইল হেঁটে হরেকৃষ্ণ মন্দিরে যেতেন শুধু একবেলা ভালো খাবার খাওয়ার জন্য। জীবনের বাঁকে তিঁনিই হয়ে যান অ্যাপল এবং পিক্সার অ্যানিমেশন প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা।

০৫।  বিল গেটস

বেড়ে ওঠা মধ্যবিত্ত পরিবারে। তাঁকে বলা হয় হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সবচেয়ে সফল ড্রপ আউট। করে ফেলেন কম্পিউটারের সফটওয়্যার আবিস্কার। নাম চলে আসে বিশ্বের এক নাম্বার ধনীর তালিকায়।

০৬।  মাক্সিম গোর্কি

১১ বছর বয়সে বাবাকে হারান। ১২ বছর বয়সে ঘর থেকে পালিয়ে যান। হতাশ হয়ে ১৯ বছর বয়সে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। কোনোদিন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পাননি। কিন্তু পরে তিঁনিই হয়ে ওঠেন বিখ্যাত সব বইয়ের লেখক।

০৭।  আলবার্ট আইনস্টাইন

দুর্বল ছিলেন পড়ালেখায়। কোনোকিছু মনে রাখতে পারতেন না। বাড়ির নাম্বারটাও না। ক্লাসের শেষ বেঞ্চে বসতেন। ফেল করেছেন বারবার। অথচ পুরো পৃথিবীকে অবাক করেছেন থিউরি অফ রিলিটিভিটি দিয়ে। নোবেল পুরস্কার ও জিতেছেন।

০৮।  টমাস আলভা এডিসন

ক্লাস এর সবচেয়ে দুর্বল ছাত্র ছিলেন। স্কুল থেকে বহিস্কারও করা হয়েছিল তাঁকে। কিন্তু তিঁনিই পৃথিবী আলোকিত করেছিলেন তাঁর আবিষ্কার দিয়ে। যদিও সেই আবিস্কার করতে গিয়ে ৯৯ বার ব্যর্থ হন। কিন্তু হাল ছাড়েননি। দেখিয়ে দিয়েছেন তাঁর যোগ্যতা। হয়েছেন জগৎখ্যাত।

০৯।  মাও সেতুং

জন্মেছেন অভাবী পরিবারে। স্কুল পর্যন্ত পড়ে থেমে যেতে হয়েছিল। বাবার সাথে মুদির দোকানে কাজ করতেন। সেই ব্যক্তিই একসময় হয়ে ওঠেন বিরাট এক বিপ্লবী নেতা। করেন চীনকে প্রতিষ্ঠা।

১০।  জন মেজর

অভাবের তাড়ানায় করেছেন কুলিগিরি। বাসের কন্ডাক্টরের কাজের জন্য গেলে তাকে ধাক্কা দিয়ে বের করে দেওয়া হয়। ছিলেন না অংকে পারদর্শী। কিন্তু তিঁনিই হয়েছিলেন ব্রিটেনের অর্থমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রী।

ঘুরে দাড়ানোর জন্য যে বইগুলো পড়তে পারেন


আরও পড়ুনঃ 

বইমেলার দারুণ কিছু বই যা চোখে পড়ে নি অনেকেরই ! 

বিল গেটস এর মতে সাফল্যের ৮ মূলমন্ত্র !

Write a Comment