ব্যবসায় টিম পরিচালনার ক্ষেত্রে কীভাবে চাপ নিয়ন্ত্রণে রাখবেন

ব্যবসায় টিম পরিচালনা

করপোরেট প্রতিষ্ঠানগুলোর পরিচালনা পদ্ধতি সময়ের তাগিদে বিভিন্নভাবে রূপ বদল করছে। কাজের ধরণে বৈচিত্র্য থাকায় বিভিন্ন দলে কর্মীদের ভাগ করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে একজন দলনেতা নির্বাচন করে কাজের দায়িত্ব দেয়া হয়। এক্ষেত্রে নেতার গুণাবলীর উপর দলের সদস্যদের কর্মগুণ নির্ভর করে। বিশ্ববিখ্যাত ম্যাগাজিন দ্য সিইও ম্যাগাজিন-এ গত ১৪ অক্টোবর ২০১৯ তারিখে চেঞ্জ মেরিডিয়ান­-এর প্রতিষ্ঠাতা ও ক্যারিয়ার বিষয়ক পরামর্শদাতা মিকেলি গিবিন্স টিম পরিচালনা নিয়ে কতিপয় অসাধারণ মতামত দিয়ে একটি সুলিখিত প্রবন্ধ লিখেছেন। রকমারি ব্লগ-এর পাঠকদের জন্য লেখাটি অনুবাদ করে উপস্থাপন করা হলো।

ব্যবসায় টিম পরিচালনার ক্ষেত্রে চাপ নিয়ন্ত্রণ ও স্বাস্থ্য সঠিক রাখার জন্য যথাযথ পদ্ধতি খুঁজে বের করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। টিম সদস্যদের চাপ সংশ্লিষ্ট ক্ষতিকর দিকগুলো চিহ্নিত করা এবং তাদেরকে এই ক্ষতি থেকে মুক্ত রাখা একজন দলনেতার অন্যতম দায়িত্ব।

চাপ ! কতিপয় লোক চাপকে অপছন্দ করেন। কেউ কেউ তা উপভোগ করেন। এক্ষেত্রে সবাই ভিন্ন ভিন্নভাবে প্রতিক্রিয়া জানান এবং তাদের চাপ নিয়ন্ত্রণের পদ্ধতিতেও ভিন্নতা রয়েছে। তবে সব ধরণের পরিবেশে চাপ থাকাটাই স্বাভাবিক।

একজন নেতা হিসেবে আপনি জানেন যে, কীভাবে কর্মক্ষেত্রে চাপের সঙ্গে নিজেকে স্বাভাবিক রাখতে হয়। একইভাবে টিমের সদস্যদের বিপদ সংকেত এবং তাদেরকে বিপদাবস্থায় কী করতে হবে এসম্পর্কেও আপনি অবগত আছেন। পেশাজীবনে তা জানা থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

ব্যবসায় টিম পরিচালনা
চেঞ্জ মেরিডিয়ান এর প্রতিষ্ঠাতা ও ক্যারিয়ার বিষয়ক পরামর্শদাতা মিকেলি গিবিন্স

সঠিকভাবে সংকেত চিহ্নিত করা

গবেষকদের কেউ কেউ বলছেন যে, নির্দিষ্ট পরিমাণের চাপ থাকার দরকার রয়েছে। কেননা তা কাজ করতে ও মনোযোগী হতে আমাদের সহায়তা করে। অভিজ্ঞতাকালে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখী হলে আমাদের মস্তিষ্ক নরাড্রেনালিন ও ডোপামিন নিঃসরণ করে, যা আমাদের মধ্যে অধিকতর সচেতনতা, সক্রিয়তা ও শিখতে উদ্বুদ্ধ করে তোলে।

গবেষক ও শিক্ষাবিদদের মতে, এটি হলো গোল্ডিলক্স জোন। এটি এমন একটি অবস্থান যা কাজের ধরণকে আমাদের কাছে খুব বেশি কঠিন কিংবা সহজ করে উপস্থাপন করে না, বরং একটি মাঝামাঝি অবস্থার সৃষ্টি করে।

ব্যবসা, বিনিয়োগ ও অর্থনীতির যে বইসমুহ পড়তে পারেন ।

যেসকল অবস্থায় চাপ স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর হয়ে দাঁড়ায়:

  • যখন নিজের উপর নিয়ন্ত্রণ থাকে না।
  • ফলাফল খুবই নগণ্য। কোনো উন্নতি দেখা যাচ্ছে না।
  • অনেক কিছুই করতে হবে বলে ঢলে পড়ছেন।
  • কাজের ক্রমাগত অবনতি হচ্ছে।
  • কাজের একই চক্রে ঘুরপাক খাচ্ছেন।

 

ব্যবসায় টিম পরিচালনার চাপ যখন নিয়ন্ত্রণ করতে পারছেন না তখনই আপনার কাছে কাজ বোঝা হয়ে পড়ে। আর চাপ দীর্ঘস্থায়ী হলে তা আপনাকে রূদ্ধ করে ফেলে।

সংকেতকে মেনে নিন:

আপনার নিজের ও দলের ব্যর্থতার সংকেত সম্পর্কে সতর্ক থাকুন। এধরণের সংকেতের মাধ্যমে টিমের সবার মধ্যে নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে। এতে টিমের উৎপাদনশক্তি, সক্রিয়তা, সজীবতা, দক্ষতা হ্রাস পেয়ে হতাশা জায়গা করে নিতে পারে।

যদি টিমের সদস্যরা নির্দিষ্ট সময়ের বেশি কাজ করেও খুব সন্তোষজনক ফলাফল প্রদান করে না, তবে সেদিকে লক্ষ্য রাখুন। তাদের অনুভূতি বুঝুন। যদি এমন হয় যে, তারা পরিশ্রম করে কাজ করছেন কিন্তু উৎপাদনের পরিমাণ খুবই নগণ্য। তাহলে এটি চাপের একটি সংকেত। এই লক্ষণ তীব্র হলে টিমের সদস্যদের মধ্যে কাজের গুণাগুণ তীব্রভাবে হ্রাস পায়।

টিমের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলুন:

টিমের সদস্যদের সঙ্গে খোলামেলাভাবে কথা বলুন। চাপ নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষেত্রে আপনার কৌশলগুলো তাদের সঙ্গে আলোচনা করুন। দৈহিক ও মানসিক অবস্থা ভালো রাখার জন্য তাদের উৎসাহ দিন। তবে, এটি তখনই কার্যকর হবে যদি নেতা স্বযত্নে টিমের সদস্যদের কাছে নিজেকে মডেল হিসেবে উপস্থাপন করতে পারেন।

একজন দলনেতা হিসেবে কতিপয় বিষয় খেয়াল রাখতে হবে। অফিস সময়ের বাইরে সদস্যরা নিজেদের ব্যক্তিগত কাজে ব্যস্ত থাকতে পারেন। এসময় তারা ফোনকল কিংবা ইমেইলে সাড়া নাও দিতে পারেন। এক্ষেত্রে দলনেতাকে উদারতা প্রদর্শন করতে হবে, যা ব্যক্তিগত সম্পর্কগুলো শ্রদ্ধপূর্ণ করে তোলে।

টিমের সদস্যদেরকে কর্মকালীন বিরতি এবং মাঝেমাঝে অফিসের বাইরে গিয়ে ঘুরে আসার জন্য উদ্বুদ্ধ করুন। অফিস কিংবা ক্যাফে নিয়মিতভাবে মিটিং না করে মাঝে মাঝে হেঁটে হেঁটে বা ওয়াকিং মিটিং করুন।

এর উদ্দেশ্য হলো নিজের কাজের ডেস্ক থেকে বাইরে নিয়ে যাওয়া। এতে কাজের পরিবেশ পরিবর্তনের মধ্যদিয়ে ব্যক্তির মানসে চিন্তাশক্তি বৃদ্ধিলাভ করে।

গ্রেট লিডার বা সিইও(CEO) হতে হলে ‘দ্য ফাইভ টেম্পটেশনস অব এ সিইও : এ লিডারশিপ ফ্যাবল‘ বইটা আপনার অবশ্যই পড়া উচিত ।

উপর্যুক্ত কর্মপদ্ধতি সক্রিয় রাখা মানে নেতা ও সদস্যদের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক জারি আছে। দলনেতা সদস্যদের সঙ্গে এমনভাবে আচরণ করবেন যাতে সদস্যরা নিজেদের অবস্থা, অনুভূতি সাগ্রহে দলনেতার সঙ্গে আলোচনা করতে পারেন।


সূত্র: https://www.theceomagazine.com/business/health-wellbeing/manage-stress-in-your-team/

আরও পড়ুনঃ

ব্যবসা শুরুর আগে উদ্যোক্তাদের অবশ্যপাঠ্য ৭ টি বই

ব্যর্থতার সঙ্গে লড়তে উদ্যোক্তাদের ১০ কৌশল

দক্ষ কর্মী হওয়ার জন্য মস্তিষ্কের বিকাশ কেন জরুরি ?

পেপসিকোর সিইও থাকাবস্থায় ইন্দ্র নওয়ীর অর্জিত ৮ শিক্ষা

comments (0)

Leave a Comment

Rokomari-blog-Logo.png