দুনিয়া মাতানো যে ১০ বই  অবশ্যই পড়া উচিত !

12

1587

দুনিয়া মাতানো যে ১০ বই অবশ্যই পড়া উচিত !

  • 0
  • #অন্যান্য
  • Author: rokomari
  • Share

নানান কারণে বই হয় আলোচিত, সমালোচিত। সকল দেশের পাঠকের কাছে হয় সমাদ্রিত। সময়কে পেছনে ফেলে কিছুকিছু উপন্যাস, গল্প, নাটক থাকে গ্রহণযোগ্যতার শীর্ষে। সাহিত্যের ইতিহাসে এমন ভুবন মাতানো বইয়ের সংখ্যা কম নয়। এই ‘কম নয়’ সংখ্যা থেকে দুনিয়া মাতানো ১০ বই বাছাই করা খুবই কঠিন কাজ। টাইম ম্যাগাজিনে প্রতিবছরই এমন বইয়ের তালিকা করা হয়। সেখান থেকেই তুলে ধরা হচ্ছে দুনিয়া মাতানো ১০ বই এর তথ্য 

আনা কারেনিনা

০১।  আনা কারেনিনা

 লিও তলস্তয়

১৮৭৩ সাল থেকে ১৮৭৭ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন পর্বে সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছে এই উপন্যাস। বই আকারে প্রকাশ পায় ১৮৭৮ সালে। এটি তলস্তয়ের প্রথম উপন্যাস ধরা হয়। কেউ কেউ এই বইটিকে শিল্পের নিঁখুত প্রকাশ বলে আখ্যায়িত করেছেন। কেউ বলেছেন, সেরা উপন্যাস।

অটাম

০২।  অটাম

আলি স্মিথ

উপন্যাসটির কেন্দ্রিয় চরিত্র একজন গীতিকার ও তাঁর প্রতিবেশি। যাদের নিয়ে এগিয়েছে বইটির কাহিনি। এটি প্রকাশিত হওয়ার পর পরই পাঠকের মনে জায়গা করে নেয়।

মাদাম বোভারি

০৩।  মাদাম বোভারি

ফ্লোভার্ট

লেখকের প্রথম উপন্যাস এটি। ১৮৫৭ সালে প্রকাশিত হয়। এনা বোভারি নামক এক চিকিৎসকের স্ত্রীকে ঘিরে কাহিনিটি এগিয়েছে। যিনি গতানুগতিক জীবন থেকে বের হওয়ার জন্য পরকীয়ায় জড়িয়ে যান। এই উপন্যাসটি ধারাবাহিকভাবে একটি পত্রিকাতে প্রকাশ হয়। অশ্লীলতার অভিযোগ ওঠে এর বিরুদ্ধে। পরে মামলা হয়। যার ফলে উপন্যাসটি ব্যাপক পরিচিত লাভ করে। আদালতের রায়ে অভিযোগ ভিত্তিহীন প্রমাণিত হলে বইটি প্রকাশ পায়। সেই বছর সেরা বিক্রি হওয়া বইয়ের তালিকায় এটি স্থান করে নেয়।

এক্সিট ওয়েস্ট

০৪।  এক্সিট ওয়েস্ট

মহসিন হামিদ

গৃহযুদ্ধের কারণে এক দম্পতি গভীর চিন্তা মাথায় নিয়ে কীভাবে নিজ দেশ থেকে নির্বাসিত হয়, সে কাহিনীই তুলে ধরা হয়েছে উপন্যাসটিতে। সমসাময়িক কাহিনি হওয়ার কারণে বইটি আলোচিত হয়।

ললিতা

০৫।  ললিতা

ভ্লাদিমির নাবোকভ

উপন্যাসটি প্রকাশিত হয় ১৯৫৫ সালে। এটি একটি বিতর্কিত বই। গল্পের প্রধান চরিত্র মধ্যবয়সী সাহিত্যের অধ্যাপক হামবার্ট। তিনি তাঁর ১২ বছর বয়সী মেয়ের প্রেমে পড়েন। শুধু তা-ই নয়, শারীরিক সম্পর্কও গড়ে ওঠে তাঁদের। বিভিন্ন ভাষায় উপন্যাসটি অনূদিত হয়েছে। ১৯৬২ সালে এবং ১৯৯৭ সালে এই ললিতা বইয়ের কাহিনিকে কেন্দ্র করে চলচ্চিত্রও নির্মাণ করা হয়। এই উপন্যাসকে শতাব্দির সেরা উপন্যাস বলা হয়ে থাকে।

দ্য পাওয়ার

০৬।  দ্য পাওয়ার

নাওমি অ্যালডার

আমাদের সময়, ইতিহাস, যুদ্ধ এবং রাজনীতি নিয়ে লেখা হয়েছে বইটি। যেখানে দেখানো হয়েছে নারীদের মধ্যে জটিল হয়ে ওঠা সমস্যাগুলো। বইটি প্রকাশ হওয়ার পর পাঠকচাহিদার শীর্ষে স্থান করে নেয়।

দ্য অ্যাডভেঞ্চার অব হাকলবেরি ফিন

০৭।  দ্য অ্যাডভেঞ্চার অব হাকলবেরি ফিন

মার্ক টোয়েন

বইটি ১৮৮৪ সালে যুক্তরাজ্যে ও ১৮৮৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রে প্রকাশিত হয়। গল্পের প্রধান চরিত্র হাকলবেরি। তাঁর বয়ানে ঘটনা বর্ণিত হয়েছে। আমিরিকা সাহিত্যের সেরা উপন্যাস ধরা হয় বইটিকে। ধারণা করা হয় বর্ণবাদ নিয়ে ব্যাঙ্গ বইটিকে সেরা তালিকায় স্থান করে নিতে সাহায্য করে।

সিং আনবারিড সিং

০৮।  সিং আনবারিড সিং

জেসমিন ওয়ার্ড

এই উপন্যাসের প্রধান চরিত্র জোজেক। যার বয়স ১৩ বছর। সে তার ছোট বোন ও নেশাগ্রস্ত কৃষ্ণাঙ্গ মাকে খুঁজতে যায় তার শ্বেতাঙ্গ বাবাকে নিয়ে। এভাবেই কাহিনি এগিয়ে যায়। বইটি ন্যাশনাল বুক অ্যাওয়ার্ডের ফিকশন ক্যাটাগরিতে সেরার পুরস্কার জিতে নেয়। 

হ্যামলেট

০৯।  হ্যামলেট

উইলিয়াম শেক্সপিয়র

ঠিক কবে প্রকাশিত হয়েছে বইটি তা জানা যায়নি। ডেনমার্কের রাজা হ্যামলেটকে হত্যা করে তাঁর ভাই ক্লদিয়াস। এরপরে সিংহাসনে আরোহণ করেন তিনি। ভাইয়ের বিধবা স্ত্রীকে বিয়ে করেন। তাঁর ভাতিজা যুবরাজ হ্যামলেটের প্রতিশোধ নেওয়ার ঘটনাগুলোই এই নাটকে বর্ণিত হয়েছে। ইংরেজি সাহিত্যে সবচেয়ে শক্তিশালী এবং প্রভাবশালী শোকবহ নাটক বলে ধরা হয় এটিকে।

পাচিনকো

১০।  পাচিনকো

মিন জিন লি

এটি লেখকের দ্বিতীয় উপন্যাস যেটাতে কোরিয়ান পরিবারের চার প্রজন্মের অভিজ্ঞতা ফুটে উঠেছে এই বইয়ে। তুলে ধরা হয়েছে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পটভূমি। বইটি প্রকাশ হওয়ার পর খুবই আলোচিত হয়। 

সেরা ১০ টি  ইংরেজি  গল্পের বই

আরও পড়ুনঃ 

বইমেলার দারুণ কিছু বই যা চোখে পড়ে নি অনেকেরই !

বইমেলা ২০১৯ এ মুহম্মদ জাফর ইকবালের বেস্টসেলার ৫টি বই

Write a Comment