কবীর সুমন এর আত্মদর্শন, যা আপনাকে ভাবাবে আবারো!!!

কবীর সুমন 1

‘আমি আমি। আরেকটা আমি তো নেই ’ – কবীর সুমন

‘এক সময় মৃত্যু নিয়ে খুব একটা ভাবতাম না। মৃত্যু অ-নে-ক দূরের মনে হতো। আজ আমি সত্তর পেরিয়েছি। মৃত্যু কাছে এগিয়ে আসছে। ক্রমশই কাছে এগিয়ে আসছে। আমার মধ্যে কোনো ধর্মচিন্তা নেই। যদিও আমি একসময় ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করি। নাম পাল্টাই। কিন্তু তার মধ্যে আধ্যাত্মিক, আত্মিক জিজ্ঞাসা অতটা ছিল না।’
কবীর সুমনের আত্মদর্শনমূলক গ্রন্থ, যা প্রথমবার বাজারে আসছে বাংলাদেশি প্রকাশনা সংস্থা ‘ছাপাখানার ভূত’ থেকে, এর শুরুটা করেছেন কবীর সুমন এইভাবে মৃত্যুচেতনা, ধর্মচিন্তাবিষয়ক আলাপ দিয়ে। শুরুটাই বলে দিচ্ছে কী কী ঝড়ঝাপটা গেছে আমাদের এই পরিভ্রমণে। কিন্তু এটাকে ঝড়ঝাপটা বলছি এই কারণে যে, এই ঝড়ঝাপটাটা দারুণ। সুন্দর। মোহনীয়। নয়নাভিরাম। অতুলনীয়। কারণ আলোচনা যাকে নিয়ে বা যিনি আলোচনা করছেন তিনি কবীর সুমন।

কবীর সুমন
কবীর সুমন, ছবি- অন্তর্জাল

কবীর সুমন__ এই নামের পটভূমিতেই রয়েছে এক দীর্ঘ ব্যক্তিস্বাতন্ত্রের ছাপ। তাকে ঘিরে রয়েছে নানান আলোচনা। সমালোচনাও। তিনি বাংলা গানের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছেন নব্বইয়ের দশকে তার প্রথম অ্যালবাম দিয়েই। সোজাসাপটা বলে দিয়েছেন সকলের প্রাণের কথা সোজা বাংলায়__ ‘প্রথমত আমি তোমাকে চাই/দ্বিতীয়ত আমি তোমাকে চাই/তৃতীয়ত আমি তোমাকে চাই/শেষ পর্যন্ত তোমাকে চাই…।’

এই যে ‘সোজাসাপটা’ কথাটা, এইটাই কবীর সুমন। তিনি সঙ্গীত করেছেন। করে চলেছেন। কিন্তু এই সোজাসাপটা কথাকে ঘিরেই তার যত বিপত্তি। করেছেন রাজনীতি। হয়েছেন এমপি। দিয়েছেন মত। দিয়ে চলেছেন ভালোলাগা-মন্দ লাগার মতামত।
এই কবীর সুমন গান করতে এসে এত কিছুতে কেনই বা জড়িয়ে পড়লেন? আসলে কোথায় তার খেদ? বা জেদ? অথবা সংবেদ?

কবীর সুমন অন্য অনেকের মত অনেক খারাপ লাগাকে হজম করে নিতে পারেন না__ মূলত এটাই তাকে নিয়ে অসুবিধার সূত্রপাত।
ধর্ম? সেই ধর্মও তিনি পাল্টেছেন। একবার নয়, দু’দুবার। তিনি দুবার মুসলমান হয়েছেন। লোকে জানে তিনি একবার মুসলমান হয়েছেন। এবং তা সাবিনা ইয়াসমিনকে বিয়ে করার সূত্রে।

সাবিনা ইয়াসমিন ও কবীর সুমন
কবীর সুমন ও সাবিনা ইয়াসমিন, ছবি- অন্তর্জাল

একটা মেয়েকে ভীষণ পেতে ইচ্ছে করছে। যদি বলে__ ‘তুমি আমার কথা ভাবো?’ আমি বলব__ ‘সারাক্ষণ।’ এটা মিথ্যে কথা। কিন্তু এই মিথ্যেটা যদি না বলি, চুমুটা খেতে পারব না। আর চুমুটা যদি খেতে না পারি, তাহলে আমি ওকে আরেকটু আদর করতে পারব না। ওকে যদি আরেকটু আদর করতে না পারি, জীবনটা রসাতলে গেল।‍’’ – কবীরা, কবীর সুমনের আত্মদর্শন

আসলে সকল জানা কি সত্যি হয়? কবীর সুমনের কাছে এই ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি ফিরে গেলেন আরও আগের এক ঘটনায়। কিম্বা দুর্ঘটনায়। তিনি প্রথমবার ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছিলেন এক ক্রিশ্চান ভদ্রমহিলাকে বিয়ে করার জন্য। নামও নিয়েছিলেন একটা। নামটা বইতে পাওয়া যাবে। এরপর আবার হিন্দু। এরপর আবার মুসলমান। এখন কবীর সুমন।

তিনি একের পর এক সম্পর্কে জড়িয়ে, সংসারে জড়িয়ে অবশেষে একা। কিন্তু কাম? কামের ব্যাপারে তার ভাষ্য, সোজা-সরল__ “একটা মেয়েকে ভীষণ পেতে ইচ্ছে করছে। যদি বলে__ ‘তুমি আমার কথা ভাবো?’ আমি বলব__ ‘সারাক্ষণ।’ এটা মিথ্যে কথা। কিন্তু এই মিথ্যেটা যদি না বলি, চুমুটা খেতে পারব না। আর চুমুটা যদি খেতে না পারি, তাহলে আমি ওকে আরেকটু আদর করতে পারব না। ওকে যদি আরেকটু আদর করতে না পারি, জীবনটা রসাতলে গেল।‍’’

রাজনীতি? রাজনীতি নিয়ে কী মত? অকপট স্বীকারোক্তি, মাও সেতুং-এর সুরে__ ‘রাজনৈতিক ক্ষমতা বন্দুকের নল থেকে বেরিয়ে আসে।

এরকম অসংখ্য প্রসঙ্গ, বিশ্বাস নিয়ে খোলাখুলি আলোচনা করেছেন কবীর সুমন সেই দুপুরে। দুপরটা ছিল ২০১৮ সালের ২২ সেপ্টেম্বর। শনিবার। কবীর সুমনের বৈষ্ণবঘাটা বাই লেনের বাড়ির বসার ঘরে দীর্ঘ পাচঘন্টা ধরে নানান কথার ভিতর দিয়ে অন্য এক শিল্পী, অন্য এক মানুষের সন্ধান পাই আমি। সেই সন্ধানের পথ ধরে হাটতে-হাটতে কেটে গেছে দেড় বছর। এই সময়টুকু দিতে হয়েছে, নিতে হয়েছে ‘কবীরা’র জন্য। কারণ কবীর সুমন কবীর সুমন। কথোপকথন পর্ব শেষ হবার পর বলছিলাম__ ‘বিস্মিত হয়েছি। এইরকম পাইনি কাউকে। এই ধরণের আলোচনা অসম্ভব।’
তখন কবীর সুমন বলেছিলেন__ ‘আমি আমি। আরেকটা আমি তো নেই।’ আসলেই তাই।
এই দেড় বছর গবেষণা, গবেষণা থেকে চিন্তা, চিন্তা থেকে বিস্ময়, তারপর আবিস্কার। আবিস্কারের পর আবার দেখা শিল্পীর সাথে। কিছু খটকা নিয়ে। কিছু ‘ফিল ইন দ্য গ্যাপ’ নিয়ে। সেই বসার ঘরটায়। সেই বারান্দায়। সেই মুখোমুখি। প্রস্তুতকৃত ‘কবীরা’ সম্পর্কে ধারণা পেয়ে বললেন__ ‘এইসব এর আগে হয়নি। এইসব প্রশ্নও কেউ করেনি। তুমি করলে।’

কবীরা
কবীরা – BUY NOW

কবীরা’র ভূমিকায় লিখেছেন__ ‘দীর্ঘজীবনে অনেকেই আমার সাক্ষাৎকার নিয়েছেন। কিন্তু বাংলাদেশের সাজ্জাদ হুসাইনের মতো এত সবিস্তারে খুটিয়ে কেউই নেননি। তার কাছে নিজের কথা অকপটে বলতে চেষ্টা করেছি। বাংলাদেশের এই নবীন আমার কাছ থেকে আদায় করে নিয়েছেন সব। এটা তার কৃতিত্ব।’
অনেক বিস্ময়, উত্তেজনা, পড়াশোনার পর তৃপ্তির ঢেকুর ফেলে প্রকাশিত হতে চলেছে কবীরা। এটা কবীর সুমনের আত্মদর্শন। বাঙলা সাক্ষাৎকারভিত্তিক বইয়ের ইতিহাসে এক ভাবনার উদ্রেককারী রচনাও বটে। একজন মানুষকে কতটা খুলে জানা সম্ভব এবং কতটা সৎসাহস থাকলে তিনি তা বলে বেরিয়ে যেতে পারেন, তা এই বই পড়লেই বোঝা যাবে সুস্পষ্ট।
বইটি প্রকাশ করছে ‘ছাপাখানার ভূত’ এই মার্চে। শরীরে লেখা দাম ৬৫০। বইটি লিখতে গিয়ে আমি প্রকম্পিত হয়েছি। এখন বাকি কর্ম পাঠকের। পাঠক এই ঘাম, এই শ্রমের মূল্য দিলে প্রীত হবো।

সাজ্জাদ হুসাইন এর বই সমূহ

 


লিখেছেন- সাজ্জাদ হুসাইন, যে পথে অন্যরা হাটতে অভ্যস্ত নন, সেই পথে হাটতেই স্বাচ্ছন্দ বোধ করেন। উদ্দেশ্য, নিজেকেই নিজে অতিক্রম করা। অনুপ্রেরণা, মানুষ। লেখায়, দেখায়, শেখায় নিরক্ষর পায়ে হেটে হেটে আলোর সন্ধানী এক শিশু। শিশুসাহিত্য, গীতিকবিতানির্ভর রচনার সাথে সম্পৃক্ত। দীর্ঘদিন জনপ্রিয় ব্যান্ডদল এলআরবি’র জন্য লিরিক লিখেছেন। প্রকাশিত গানের সংখ্যা শতাধিক। তার লেখা গ্রন্থগুলো হলোঃ ‘অঞ্জনযাত্রা’ (অঞ্জন দত্তর আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থ), ‘নাট্যঞ্জন’(অঞ্জন দত্তর থিয়েটার লাইফ নিয়ে গ্রন্থ), ‘কবীরা’ (কবীর সুমনের আত্মদর্শনমূলক গ্রন্থ)। তার লেখা সবগুলো গ্রন্থ দেখুন রকমারি ডট কম-এ

 

rokomari

rokomari

Published 29 Jan 2018
Rokomari.com is now one of the leading e-commerce organizations in Bangladesh. It is indeed the biggest online bookshop or bookstore in Bangladesh that helps you save time and money.
  0      0
 

comments (0)

Leave a Comment

You May Also Like This Article

Rokomari-blog-Logo.png