যে উপন্যাসগুলো না পড়লে আপনার পাঠ অসম্পূর্ণ থেকে যেতে পারে – আহমাদ মোস্তফা কামাল

এক নজরে আহমেদ মোস্তফা কামাল। যাবতীয় বৈষয়িক সাফল্যের সম্ভাবনাকে নাকচ করে যিনি কেবল লেখালেখিকেই জীবনের সব স্বপ্নের কেন্দ্রবিন্দু করে তুলেছেন তিনি। পেশাগত জীবনের শুরু থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন। বর্তমানে ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত আছেন। লেখালেখির শুরু নব্বই দশকের গোড়া থেকেই। প্রথম গল্পগ্রন্থ 'দ্বিতীয় মানুষ' প্রকাশিত হয় ১৯৯৮ সালে। রকমারি ডট কম-এ দেখুন আহমাদ মোস্তফা কামালের রকমারি ডট কম- বেস্ট সেলার সকল বই। 

0
4278
বাংলাদেশের যে উপন্যাসগুলো না পড়লে আপনার পাঠ অসম্পূর্ণ থেকে যেতে পারে, তার একটা সংক্ষিপ্ত-প্রাথমিক তালিকা এটি। এই তালিকায় গত শতকের চল্লিশ থেকে আশির দশকের লেখকদের উল্লেখযোগ্য উপন্যাসগুলোর নাম দেয়ার চেষ্টা করেছি। নব্বই দশক এবং এরপরও বেশ কিছু ভালো উপন্যাস লেখা হয়েছে, সেগুলোর তালিকা তৈরির দায়িত্ব তরুণদের হাতে ছেড়ে দিচ্ছি।
দ্রষ্টব্য : এই তালিকা আমার ব্যক্তিগত পছন্দের ভিত্তিতে তৈরি করা। যে-কেউ দ্বিমত করতে পারেন, নতুন নাম যুক্ত করতে পারেন, এখান থেকে কোনোটা বাদও দিতে পারেন। আমার আপত্তি নেই।

[বইগুলোর কিছু অংশ পড়ে দেখতে বইয়ের নামের উপর ক্লিক করুন]

১. সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ – লালসালু, কাঁদো নদী কাঁদো
২. আবু ইসহাক – পদ্মার পলিদ্বীপ, সূর্য দীঘল বাড়ী
৩. শওকত ওসমান – ক্রীতদাসের হাসি
৪. রশীদ করীম – আমার যত গ্লানি
৫. সৈয়দ শামসুল হক – দ্বিতীয় দিনের কাহিনী, খেলারাম খেলে যা
৬. জহির রায়হান – হাজার বছর ধরে, আরেক ফাল্গুন
৭. শওকত আলী – প্রদোষে প্রাকৃতজন
৮. মাহমুদুল হক – কালো বরফ, জীবন আমার বোন
৯. আখতারুজ্জামান ইলিয়াস – চিলেকোঠার সেপাই, খোয়াবনামা
১০. রাহাত খান – অমল ধবল চাকরি
১১. হুমায়ূন আহমেদ – শঙ্খনীল কারাগার, যখন গিয়েছে ডুবে পঞ্চমীর চাঁদ
১২. মঈনুল আহসান সাবের – মানুষ যেখানে যায় না, এই দেখা যায় বাংলাদেশ
১৩. শহীদুল জহির – জীবন ও রাজনৈতিক বাস্তবতা
এই উপন্যাসগুলো পড়া হলে কেউ যদি আরেকটু এগোতে চান তাদের জন্য আরো কিছু নাম :
১৪ সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ – চাঁদের অমাবস্যা
১৫. আবু জাফর শামসুদ্দীন – দেয়াল
১৬. শামসুদ্দীন আবুল কালাম – কাশবনের কন্যা
১৭. শহীদুল্লা কায়সার- সংশপ্তক, সারেং বউ
১৮. শওকত ওসমান – জননী
১৯. রশীদ করীম – উত্তম পুরুষ, মায়ের কাছে যাচ্ছি
২০. আনোয়ার পাশা – রাইফেল রোটি আওরাত
২০. রিজিয়া রহমান – বং থেকে বাংলা
২০. সৈয়দ শামসুল হক – দূরত্ব, স্তব্ধতার অনুবাদ, ত্রাহি, স্মৃতিমেধ ও নীল দংশন
২১. আলাউদ্দিন আল আজাদ – তেইশ নম্বর তৈলচিত্র
২২. শওকত আলী – যাত্রা, দক্ষিণায়নের দিন
২৩. আবু বকর সিদ্দিক – খরাদাহ
২৪. হাসনাত আবদুল হাই – নভেরা, সুলতান
২৫. হাসান আজিজুল হক – আগুনপাখি, বৃত্তায়ন
২৬. মাহমুদুল হক – অনুর পাঠশালা, খেলাঘর
২৭. আহমদ ছফা – একজন আলী কেনানের উত্থান-পতন, গাভী বৃত্তান্ত, ওঙ্কার
২৮. শেষ পানপাত্র – বশীর আল হেলাল
২৯. হুমায়ুন আজাদ- সব কিছু ভেঙে পড়ে
৩০. সেলিনা হোসেন – হাঙর নদী গ্রেনেড
৩১. রশীদ হায়দার- খাঁচায় অন্ধ কথামালা,
৩২. হুমায়ূন আহমেদ – আগুনের পরশমনি, সৌরভ, ১৯৭১
৩৩. ইমদাদুল হক মিলন – যাবজ্জীবন, কালো ঘোড়া, কালাকাল
৩৪. মঞ্জু সরকার – তমস, প্রতিমা উপাখ্যান
৩৫. মঈনুল আহসান সাবের – ঠাট্টা, কবেজ লেঠেল
৩৬. হরিপদ দত্ত – অজগর
৩৭. শহীদুল জহির – সে রাতে পূর্ণিমা ছিল, মুখের দিকে দেখি
৩৯. নাসরীন জাহান – উড়ুক্কু
৪০. আনিসুল হক – ফাঁদ

এক নজরে আহমেদ মোস্তফা কামাল। যাবতীয় বৈষয়িক সাফল্যের সম্ভাবনাকে নাকচ করে যিনি কেবল লেখালেখিকেই জীবনের সব স্বপ্নের কেন্দ্রবিন্দু করে তুলেছেন তিনি। পেশাগত জীবনের শুরু থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন। বর্তমানে ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত আছেন। লেখালেখির শুরু নব্বই দশকের গোড়া থেকেই। প্রথম গল্পগ্রন্থ ‘দ্বিতীয় মানুষ’ প্রকাশিত হয় ১৯৯৮ সালে। রকমারি ডট কম-এ দেখুন আহমাদ মোস্তফা কামালের রকমারি ডট কম- বেস্ট সেলার সকল বই।

LEAVE A REPLY