একাত্তরের বহুমাত্রিক নির্যাতনের এক অসামান্য দলিল

Genocide-1971

মুক্তিযুদ্ধ- বাঙালির আত্মার সাথে মিশে থাকা এক ইতিহাস। একদিকে এটা যেমন আমাদের সাহস যোগায়, ঠিক সেভাবেই মুক্তিযুদ্ধের কথা উঠলেই একটু মনমরাও হয়ে পড়ি আমরা। আমরা কিন্তু কল্পনাও করতে পারি না আজ থেকে ঠিক ৫০ বছর আগে সময়টা কেমন ছিল। যখন আপনি ভাবতে যাবেন, আপনার শিরদাঁড়া কেঁপে উঠবে। 

আমরা যে সময়টা ভাবতেও চাই না, সেই সময়কে পার করে এসেছে আমাদের পূর্বপুরুষেরা। এ প্রজন্মের অনেকেই জানে না সেই সময় আসলে কেমন ছিল। আবার অনেকের কাছে শুনে শুনে, গল্প-উপন্যাস পড়ে কিংবা সিনেমা দেখে কিছুটা ধারণা করতে পারে এই প্রজন্ম। কিন্তু আসলেই তা কেমন ছিল? আমরা এতদিন যা দেখেছি, শুনেছি সেসব থেকে নির্মমতার কিছুটা চিত্র আঁকা গেলেও বাস্তবতা ছিল এর চেয়েও ভয়াবহ। 

আজকে যে বইটি নিয়ে আলোচনা করা হবে সেই বইটিতে উত্তাল একাত্তরের কিছু চিত্রই তুলে ধরতে চেয়েছেন লেখক। 

লেখক, গবেষক এবং সাংবাদিক আফসান চৌধুরী; বর্তমানে শিক্ষকতা পেশার সাথে যুক্ত থাকলেও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে গবেষণা করে চলেছেন দীর্ঘদিন ধরেই। তাঁর মতে, বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে যেসব বই আছে এর মধ্যে গবেষণাধর্মী বইয়ের সংখ্যা খুব কম। সেসবের মাঝে বাংলা ভাষা বাদে অন্য ভাষায় বইয়ের সংখ্যা আরও কম। তাঁর রচিত ‘১৯৭১ গণনির্যাতন-গণহত্যা বইটি ২০২০ সালের একুশে বইমেলায় ‘কথাপ্রকাশ’ প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয়েছে । 

মুক্তিযুদ্ধের অনেক অজানা তথ্যে সমৃদ্ধ এই বইটি। ভারত-পাকিস্তান আলাদা হবার পর থেকেই পাকিস্তানিরা আমাদের উপর নিজেদের প্রভাব খাটাতে শুরু করে দ্বিগুণভাবে। হত্যা-খুন-লুটতরাজ-রাহাজানি হেন কাজ নেই যা তারা করেনি। পদে পদে অপমান, বঞ্চনা,অধিকার থেকে বঞ্চিত করা, যত নিচে মানুষ নামতে পারে- সবটুকুই তারা করে দেখিয়েছিল। সবকিছুর সীমা অতিক্রম করে যখন ১৯৭০ সালের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো, আমরা ভোটে জয়ী হলেও ক্ষমতা হস্তান্তরে গড়িমসি করতে থাকে পাকিস্তান সরকার। যার ফলশ্রুতিতে আসে ২রা মার্চে প্রথম বাংলার পতাকা উত্তোলন এবং ৭ মার্চে বঙ্গবন্ধুর সেই কালজয়ী ভাষণ। শুধু তা-ই না, এই পাক হানাদার বাহিনী কিন্তু ২৫ মার্চের বেশ আগে থেকেই গোপনে অস্ত্র এনে জমা করে রাখছিল। অর্থাৎ তারা জানত, বাঙালি ঘুরে আর রুখে দাঁড়াবেই। তাই বাংলা আর বাঙালিকে থামানোর চেষ্টা বার বার করে গেছে তারা।

অবাধে মানুষ হত্যা, নারীদের উপর অকথ্য অত্যাচার, ধর্মীয় নানা প্রতিষ্ঠানে হানা দিতেও দুবার ভাবেনি তারা। বাড়িঘরে আগুন, লুটপাট, ফসলের খেতে আগুন দেয়া- কী করেনি তারা! ধনী-গরিব, শিক্ষিত-অশিক্ষিত, নারী-পুরুষ, শিশু-বৃদ্ধ কোনো মানুষই তাদের করাল গ্রাস থেকে বাঁচতে পারেনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, ডাক্তার, মসজিদের ইমাম কিংবা ২-৩ মাসের অবুজ শিশু- সবাইকে মেরে বেয়নেটের খোঁচায় লাশকে করেছে ক্ষত-বিক্ষত। তারা চেয়েছিল, আর ভেবেছিল, আমরা বাঙালি জাতি এই অত্যাচারের মুখে নতি স্বীকার করে তাদের কাছে মাথা নত করব। কিন্তু না, নিরস্ত্র বাঙালি হাতে তুলে নিয়েছিল অস্ত্র। ঘুরে দাঁড়িয়েছিল দেশের জন্য, মায়ের জন্য, সুন্দর এক ভবিষ্যতের জন্য। এসব সত্য ঘটনা উঠে এসেছে দেশী-বিদেশী নানা সাংবাদিক, ফটোগ্রাফার ও অতিথিদের আলোকচিত্র ও লেখায়। 

১৯৭১ সালের পাকহানাদার বাহিনীর সেই আক্রমণে আমাদের দেশের পুরো কাঠামোই ভেঙে পড়ে। সেই বছরেরই ১৬ ডিসেম্বরের পর দেখা গেল, পুরো দেশটাই যেন একটা ধ্বংসস্তুপ। অর্থনীতি, শিক্ষা, সমাজ কাঠামো থেকে শুরু করে এমন কোনো জায়গা ছিল না যেটাকে তারা ভেঙে দেবার চেষ্টা করেনি। অনেকাংশে তারা বেশ সফলও হয়েছিলো। এর সাথে ছিল সেই ১৪ ডিসেম্বরের বুদ্ধিজীবী হত্যা। একটা দেশকে ভেঙে দিতে যতটা করা সম্ভব করে গিয়েছিল তারা। পুরোপুরি ব্যর্থ না হলেও তারা অনেকাংশে সফল হয়েছিল।

এসব তথ্য অল্প-বিস্তর আমরা জানি। কিন্তু বিস্তারিত জানার জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট বা দলিল খুব কম। আর তাই লেখক চেষ্টা করেছেন মোটামুটি সেই সময়ের অত্যাচার, নির্যাতনের সব চিত্র বইয়ে লিপিবদ্ধ করার। এই বইটি মুহুর্তেই পাঠককে নিয়ে যাবে সেই ১৯৭১ সালে। নতুনভাবে সেই হানাদার বাহিনীর অত্যাচার সম্পর্কে জানবার সুযোগ করে দেবে। কারণ বইটি অনেক প্রতক্ষ্যদর্শী, নির্যাতিত মানুষের সাক্ষ্য আর প্রমাণের ভিত্তিতে গড়ে উঠেছে। 

একজন বাঙ্গালী হিসেবে, বাংলার ইতিহাস ঐতিহ্য জানার জন্য এই বইটি অবশ্যপাঠ্য। নির্যাতনের পরে নির্যাতন সহ্য করে বাঙালিকে থামিয়ে রাখতে পারেনি কেউ। কারণ বীর বাঙালি অন্যায়ের বিরুদ্ধে সর্বদা রুখে দাঁড়িয়েছে। এই বইটিও হয়তো পাঠককে আবার উৎসাহ দেবে যেকোনো অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে। বইটি পড়ার পর দেশের ইতিহাস, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে নতুন করে আরো বেশি জানতে ইচ্ছা করবে। এই দেশের প্রতি, দেশের গৌরবোজ্জ্বল অধ্যায় মুক্তিযুদ্ধের প্রতিও অন্যরকম এক ভালোবাসা অনুভব করবেন আগ্রহী পাঠকসমাজ।

বইটি সংগ্রহ করতে ক্লিক করুন

Rokomari Editor

Rokomari Editor

Rokomari is one of the leading E-commerce book sites in bangladesh

Leave a Comment

Rokomari-blog-Logo.png
Loading