চলচ্চিত্র কথা: গল্প-কথায় তারেক মাসুদ

পড

বাংলাদেশি চলচ্চিত্র নিয়ে যাদের আগ্রহ রয়েছে, তারেক মাসুদ এর নামটি তাদের মনে-মগজে বদ্ধমূল। যেসব উঠতি তরুণ ভবিষ্যতে চলচ্চিত্র নির্মাণের স্বপ্ন দেখে, তারেক মাসুদ তাদের স্বপ্নসারথী। চলচ্চিত্রকে হাতিয়ার করে যারা সামাজিক অন্যায় ও বঞ্চনার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে চায়, তিনি তাদের পথপ্রদর্শক। বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের তেমন গৌরবোজ্জ্বল কোনো ইতিহাস না থাকলেও তার মাঝে যে নামগুলো উজ্জ্বল, তারেক মাসুদ তার একটি। তাই তো ২০১১ সালে সড়ক দুর্ঘটনায় তার অকালমৃত্যুতে স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল পুরো সিনেমাপাড়া। যাকে ঘিরে বাংলা চলচ্চিত্রের নতুন যুগের স্বপ্ন দেখা হচ্ছিল, তার অকাল মৃত্যু কী সে স্বপ্নকে দুঃস্বপ্নে রূপান্তর করলো?

খ্যাতিমান এই চলচ্চিত্রকারের প্রতিটি কাজ, প্রতিটি কথা গুরুত্ব সহকারে তুলে রাখা প্রয়োজন পরবর্তী প্রজন্মের জন্য। সেই কাজটি চমৎকারভাবে করেছে তারেক মাসুদ মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ও ম্যুভিয়ানা ফিল্ম সোসাইটি। ২০১৯ সালের ৬ ডিসেম্বর তারেক মাসুদের ৬৩ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এই প্রতিষ্ঠান দুটি সম্মিলিত উদ্যোগে ‘চলচ্চিত্রকথা’ বইটি আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করে। ক্যাথরিন মাসুদ, প্রসূন রহমান ও বেলায়াত হোসেন মামুন এর সংকলন ও সম্পাদনায় প্রকাশিত বইটি তারেক মাসুদের বিভিন্ন সময়ের সাক্ষাৎকার ও বক্তৃতার প্রথম খন্ড। তার সাক্ষাৎকার ও বক্তৃতা নিয়ে আরো এক খণ্ড প্রকাশ হবে সামনে। প্রথম খণ্ডে স্থান পেয়েছে তারেক মাসুদের ১০টি বক্তৃতা ও সাক্ষাৎকার।

গ্রামের মাদরাসায় পড়ালেখা দিয়ে শিক্ষাজীবন শুরু হলেও তারেক মাসুদ শুরু থেকেই ছিলেন ভীষণ সংস্কৃতিমনা। আর তাই পড়ালেখার সীমাবদ্ধতা তাকে কোনো গণ্ডিতে আটকে রাখতে পারেনি। নিজ গুণে তিনি হয়ে ওঠেন বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের একজন পুরোধা ব্যক্তিত্ব। শুধু চলচ্চিত্র নির্মাণই নয়, নিজের সূক্ষ্ম ও কঠোর সমালোচনাত্মক ভঙ্গির বিশ্লেষণী লেখনীতে তিনি প্রতিনিয়ত দেশের চলচ্চিত্রাঙ্গনকে উন্নত করার প্রয়াস চালিয়েছেন। চলচ্চিত্রের অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি নির্মাণ প্রক্রিয়া উন্নতকরণ, মানসম্মত চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য তারেক মাসুদ সর্বদাই সোচ্চার ছিলেন। 

’৯০ এর দশকে দেশীয় চলচ্চিত্রাঙ্গনে পথচলা শুরু হয় তারেক মাসুদের। ১৯৯৬ সালে মুক্তির গান নামক চমৎকার একটি প্রামাণ্যচিত্র দিয়ে হাতেখড়ি হয় তার। এরপর মুক্তির কথা (১৯৯৯), নারীর কথা (২০০০), মাটির ময়না (২০০২), অন্তর্যাত্রা (২০০৬), নরসুন্দর (২০০৯) ও সবশেষ রানওয়ে (২০১০) ছবিটি পরিচালনা করেন তিনি। প্রতিটি সিনেমাই দর্শক ও সমালোচকদের প্রশংসা অর্জনে সক্ষম হলেও ‘মাটির ময়না’ ছবিটির নাম বিশেষভাবে উচ্চারিত হয়। এই সিনেমায় ধর্মান্ধতার কুফল চমৎকারভাবে ফুটিয়ে তোলেন পরিচালক। সাথে রয়েছে তার ব্যক্তিগত জীবনের শৈশবের প্রতিফলন। ছবিটি কান চলচ্চিত্র উৎসবে ক্রিটিকস প্রাইজ লাভ করে। 

তারেক মাসুদ
BUY NOW

তারেক মাসুদ ছিলেন অত্যন্ত চমৎকার একজন বক্তা। তার লেখনী অসাধারণ হলেও লেখালেখির সময় তিনি খুব একটা করে উঠতে পারতেন না। তার চেয়ে বরং বক্তৃতা আর সাক্ষাৎকার দিতেই ভালোবাসতেন। দারুণ শব্দ চয়ন, ক্ষুরধার বিশ্লেষণী ক্ষমতা আর সিনেমা বিষয়ে অগাধ জ্ঞান তার বক্তৃতাগুলোকে প্রাণবন্ত করে তুলতো। এসব বক্তব্যে তার সৃজনশীল চিন্তা ও সিনেমার প্রতি তার আধুনিক দৃষ্টিভঙ্গি উঠে এসেছে। অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এই কথাগুলো সংগ্রহ করতে তাই পরিশ্রমসাধ্য প্রচেষ্টা চালিয়েছে সম্পাদকগণ। পুরোনো অডিও সিডি, রেডিও ও টেলিভিশন আর্কাইভ, পুরোনো কম্পিউটার হার্ডডিস্ক, পেনড্রাইভ, মিনি ডিস্ক, ইত্যাদি উৎস থেকে তার সাক্ষাৎকার ও বক্তৃতাগুলো সংগ্রহ করা হয়েছে। সবগুলো সংগ্রহের পর সম্পাদক বিশাল আকারের বই না করে দুই খণ্ডে প্রকাশের সিদ্ধান্ত নেন। সেই সিদ্ধান্ত থেকে প্রথম খণ্ড প্রকাশিত হয় নির্বাচিত ১০টি সাক্ষাৎকার ও বক্তৃতা নিয়ে। 

বই সংকলন এমনিতেই একটি শ্রমসাধ্য কাজ। সেটি যখন পুরোনো সাক্ষাৎকার আর বক্তৃতার সংকলন হয়, তা আরো বেশি শ্রমসাধ্য হয়ে ওঠে নিঃসন্দেহে। তারেক মাসুদ যখন তার বক্তৃতাগুলো প্রদান করতেন, তখনো মিডিয়া এতোটা ডিজিটালাইজড হয়নি, ইন্টারনেটের ব্যাপ্তী আজকের মতো ছিল না। ফলে তার কথাগুলো অবিকল তুলে আনা অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং একটি কাজ ছিল। এই চ্যালেঞ্জিং কাজকে সফল করতে সম্পাদকদের পাশাপাশি কাজ করেছেন আরো অনেকে। কাজ করেছেন ইউনিভার্সিটি অব লিবার‍্যাল আর্টস (ইউল্যাব) এর দুজন গবেষক, প্রকল্প তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে কাজ করেছেন বিকাশচন্দ্র ভৌমিক, অডিও থেকে লিখিত ট্রান্সক্রিপ্ট তৈরির কাজ করেছেন সাইফুল ইসলাম। এছাড়া তারেক মাসুদ মেমোরিয়াল ট্রাস্টের কারিগরি সহায়তা তো আছেই। সবকিছু মিলিয়েই সংকলিত হয়েছে মূল্যবান এ বইটি।

বইটি সংগ্রহ করতে ক্লিক করুন

চলচ্চিত্রকথা বইটি সিনেমাপ্রেমী ও আগ্রহী পাঠকদের জন্য একটি চমৎকার পাঠ। তারেক মাসুদের দৃষ্টিভঙ্গি, দর্শন, সিনেমা নিয়ে তার ভাবনা, জাতীয়তাবাদ ও রাজনৈতিক দর্শন সহ সিনেমার নির্মাণশৈলী নিয়ে জ্ঞানগর্ভ আলোচনা উঠে এসেছে বইটিতে। এছাড়াও মাটির ময়না সিনেমাটি নিয়ে আলাদা করে একটি সাক্ষাৎকারও রয়েছে বইটিতে, রয়েছে তারেক মাসুদের নিজের জীবন সংক্রান্ত অনেক গল্প কথা। বাংলাদেশি সিনেমার ইতিহাসে গুটিকতক নেতৃত্বস্থানীয় ব্যক্তিদের মাঝে তারেক মাসুদ একজন, যার নেতৃত্বে সিনেমাশিল্প অনেকদূর এগিয়ে যেতে পারতো। তার অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যুতে সেটি সম্ভব না হলেও তার রেখে যাওয়া কাজ, তার সৃজনশীল চিন্তা আর কথাগুলো অনুকরণ করেই সিনেমাপাড়ায় নতুন বিপ্লব সৃষ্টি হতে পারে।

ক্যাথরিন মাসুদের সকল বই পেতে 

 

এই ব্লগটি লিখেছেন মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম

Rokomari Editor

Rokomari Editor

Rokomari is one of the leading E-commerce book sites in bangladesh

Leave a Comment

You May Also Like This Article


Notice: Undefined offset: 4 in /var/www/html/blog.rokomari.com/wp-includes/class-wp-query.php on line 3300

Notice: Trying to get property 'ID' of non-object in /var/www/html/blog.rokomari.com/wp-content/plugins/new-pc-functionality/views/relatable-posts-views.php on line 30

Notice: Trying to get property 'ID' of non-object in /var/www/html/blog.rokomari.com/wp-content/plugins/new-pc-functionality/views/relatable-posts-views.php on line 31

Notice: Trying to access array offset on value of type bool in /var/www/html/blog.rokomari.com/wp-content/plugins/new-pc-functionality/views/relatable-posts-views.php on line 33
Rokomari-blog-Logo.png
Join our mailing list and get the latest updates
Loading