করপোরেট কমিউনিকেশন কী? কেন শেখা প্রয়োজন?

কর্পোরেট শিষ্টাচার মেনে ইংরেজিতে কমিউনিকেট করার কার্যকরী উপায়
corporate communication feature image

সরকারি অথবা বেসরকারি যেকোনাে প্রতিষ্ঠানের জন্যই কমিউনিকেশন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সব প্রতিষ্ঠানকেই তাদের স্টেকহােল্ডারদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যােগাযােগে থাকতে হয়। ক্রেতা, ব্যাবসায়িক পার্টনার, আইনজীবী, অডিটর, সাংবাদিক অথবা কর্মচারী, যাঁর সঙ্গেই হােক না কেন, সঠিক কৌশল প্রয়ােগ করতে পারলে কমিউনিকেশনে ইতিবাচক পরিবর্তন আনা যায়। কমিউনিকেশনের বিভিন্ন পর্যায়ে উপযুক্ত ভাষা নির্ধারণ করার জন্য আপনাকে শ্রোতার/পাঠকের পারিপার্শ্বিকতা এবং প্রতিষ্ঠানের নীতিমালা ও কর্মপন্থা সম্পর্কে ভালােভাবে জেনে নিতে হবে। আপনার প্রতিষ্ঠানের আইডেনটিটি সঠিকভাবে উপস্থাপন করার জন্য লিখিত ও মৌখিক উভয় ধরনের কমিউনিকেশনের ক্ষেত্রেই আপনাকে উপযুক্ত ভাষা ব্যবহার করতে হবে। সুতরাং, কোনাে প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির ওপর ইতিবাচক প্রভাব সৃষ্টি করার জন্য আপনাকে অবশ্যই করপােরেট কমিউনিকেশনের কৌশলগুলাে আয়ত্ত করতে হবে।

রোকসানা আক্তার রুপীর ‘করপোরেট কমিউনিকেশন’ বইটিতে এরকমই কিছু কৌশলকে ব্যাখ্যা করা হয়েছে অত্যন্ত সহজ-সাবলীলভাবে। কিন্তু এখানে মূলত জোর দেয়া হয়েছে ইংরেজি ভাষায় যোগাযোগের দক্ষতার ওপর। কর্পোরেট যোগাযোগের সঙ্গে ইংরেজি ভাষার সম্পর্ক খুব কাছাকাছি।

আরও পড়ুন- ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করার উপায় জানতে অব্যর্থ বইয়ের তালিকা

করপোরেট যোগাযোগে ইংরেজি ভাষা কেন জানা প্রয়োজন? 

ইংরেজি হলাে আন্তর্জাতিক যােগাযােগের মাধ্যম এবং ব্যবসায়ের আন্তর্জাতিক ভাষা। সাধারণ ইংরেজি ও ব্যবসায়িক ইংরেজির মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। যদি আপনি কিংবা আপনার কর্মীবাহিনী ব্যবসায়িক ইংরেজিতে দক্ষ হন, তাহলে ব্যবসায়ে সফল হওয়ার অন্যতম একটি নিয়ামক আপনার হাতে রয়েছে। সাধারণত বাের্ড মিটিং কিংবা প্রেজেন্টেশনের ভাষা হয় ইংরেজি, যেখানে শ্রোতা/অংশগ্রহণকারী বা প্রেজেন্টার কারােরই মাতৃভাষা ইংরেজি নয়। প্রাইভেট মিটিং বা পাবলিক ফোরাম, যেখানেই হােক, আপনার মূল বক্তব্য বােঝানাের জন্য ইংরেজিই সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ভাষা। আপনি যদি ইংরেজিতে কথা বলায় দক্ষ হন, তাহলে এটি আপনার কাজের প্রয়ােজনে ভ্রমণে সাহায্য করবে। আপনি যদি ইংরেজি পড়তে ও লিখতে পারেন, তবে আপনি ব্যবসায়িক ভ্রমণ পরিকল্পনার পাশাপাশি উন্নত আয়ােজনও করতে পারবেন। আপনার ইংরেজি যদি প্রফেশনাল মানের হয়, তাহলে বিজনেস প্রেজেন্টেশন দেওয়ার ক্ষেত্রে কিংবা বিজনেস ডিল করার ক্ষেত্রে আপনি এক ধাপ এগিয়ে আছেন।

করপোরেট কমিউনিকেশন , রোকসানা আক্তার রুপী
BUY NOW

যােগাযােগের জন্য বেশি ব্যবহার করা হয় ই-মেইল। আর ই-মেইলে আপনার বক্তব্যের মূল পয়েন্ট কীভাবে তুলে ধরতে হবে, সেটা জানা খুবই জরুরি। সঠিক ধারায়, কোনাে ভুল না করে, ভালােভাবে ই-মেইল লিখতে পারা একটি বিশেষ দক্ষতা। রোকসানা আক্তার রুপী খুব সুন্দরভাবে উদাহরণসহ দক্ষতাগুলোকে তুলে ধরেছেন। কী কী কারণে আপনার কর্পোরেট কমিউনিকেশনে দক্ষ হওয়া প্রয়োজন? নিচের বুলেট পয়েন্টগুলোতে চোখ বুলিয়ে নিন।

• করপােরেট আইডেনটিটি সুদৃঢ় করতে

• গ্রহণযােগ্যতা বৃদ্ধি করতে

• প্রফেশনালিজম বৃদ্ধি করতে

• বাইরের প্রভাব নিয়ন্ত্রণ করতে

• কর্মক্ষেত্রের পরিবেশের উন্নতিতে

• কর্মদক্ষতার উন্নতিতে

প্রফেশনালদের মতো লিখুন

বইটির পাঠ্যসূচীকে তিনভাগে ভাগ করে বর্ণনা করা হয়েছে। প্রথম ভাগ হলো- কিভাবে আপনি প্রফেশনালদের মতো লিখতে পারবেন। এই ভাগে প্রফেশনাল ইমেইল, সাধারণ ও ব্যবসায়িক ইংরেজির পার্থক্য, প্রফেশনালিজমে সংক্ষিপ্ততার প্রয়োজনীয়তা, পুরােনাে ও আধুনিক ইংরেজির পার্থক্য, ইমেইলের শিষ্টাচার, আমেরিকান ও ব্রিটিশরীতির ইংরেজিতে পার্থক্য, ব্যবসায়িক ই-মেইলে ব্যবহৃত গুরুত্বপূর্ণ ইংরেজি বাক্য, প্রফেশনালদের মতাে চিঠি লেখা, ব্যবসায়িক চিঠির শিষ্টাচার, প্রফেশনাল চিঠির প্রকারভেদ, প্রফেশনালদের মতাে করে নেতিবাচক বার্তা লেখা, দুঃসংবাদ দেওয়ার গুরুত্ব, উদ্দেশ্য প্রকাশভঙ্গী ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন- ক্যারিয়ার নিয়ে ভয় : উত্তরণ কোন পথে?

প্রফেশনালদের মতো কথা বলুন 

বইটির দ্বিতীয় ভাগ- ‘প্রফেশনালদের মতো কথা বলুন’। এই ভাগে উপস্থাপনায় দক্ষতা, মনে রাখার মতাে কিছু বিষয়, বিশেষ পরিস্থিতিতে ব্যবহারের জন্য কিছু বাক্য, ভুল এবং এর সংশােধন, ভুলে যাওয়া কিছু যােগ করা , কঠিন প্রশ্নের উত্তর দেয়ার উপায়, মিটিং পরিচালনা করা, মিটিংয়ে অংশগ্রহণ করা, ব্যবসায়িক আলাপ-আলােচনা, কর্মক্ষেত্রে মার্জিত ও কৌশলপূর্ণ ইংরেজির ব্যবহার ইত্যাদি বিষয় আলোচিত হয়েছে।

প্রফেশনালদের মতাে কমিউনিকেট করুন

বইটির তৃতীয় ভাগে প্রফেশনালদের মতো করে যোগাযোগ করার কৌশল ও উপায় বাতলে দেয়া হয়েছে। অফিসে ব্যবহৃত কিছু অভিব্যক্তি, কিছু জটিল ব্যবসায়িক অভিব্যক্তি, মার্জিতভাবে প্রস্তাব দেওয়া, গ্রহণ করা ও প্রত্যাখ্যান করার উপায়, প্রফেশনাল হিসেবে যেটা আপনি কখনােই বলবেন না, নেতিবাচক মতামত স্পষ্টভাবে উল্লেখ করা, ম্যানেজারদের জন্য প্রয়ােজনীয় কিছু শব্দ, কর্মক্ষেত্রে প্রফেশনাল, শালীন ও উপকারী কিছু শব্দ আলোচনায় এসেছে।

ওপরে বর্ণিত বিষয়গুলাে এবং পাবলিক ও বহুজাতিক কোম্পানিতে করপােরেট ট্রেনিং করানাের সুদীর্ঘ ১৬ বছরের অভিজ্ঞতাকে ভিত্তি করে লেখক এই বইয়ে বিজনেস কমিউনিকেশনের টিপস ও টেকনিকসমূহের এক চমৎকার সমন্বয় করেছেন। এই বইটি আপনাকে কমিউনিকেশনের মাধ্যমে শ্রোতা অথবা পাঠকের ওপর ইতিবাচক প্রভাব তৈরি করতে সাহায্য করবে।

আরও পড়ুন-সফলতার গোপন রহস্য ৮টি!

করপোরেট কমিউনিকেশন বইটি সম্পর্কে বিস্তারিত দেখুন 

ক্যারিয়ার গঠন ভিত্তিক উল্লেখযোগ্য বইগুলো দেখুন 

 

Rokomari Editor

Rokomari Editor

Rokomari is one of the leading E-commerce book sites in bangladesh

Leave a Comment

You May Also Like This Article

Rokomari-blog-Logo.png
Join our mailing list and get the latest updates
Loading