করোনা প্রতিরোধে অ্যালকোহলযুক্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার কি জায়েজ?

corona & hand Sanitizer

পৃথিবীতে এ সময় সবচেয়ে আলোচিত যে কথা তা হল- করোনা ভাইরাস।  এমন কোন লোক নেই যিনি এই ভাইরাসের নাম জানেন না, সেটি যে কারণেই হোক না কেন। আল্লাহ্‌ তা’আলা এর মাধ্যমে আমাদের বুঝিয়ে দিলেন যে আমরা কতটা দুর্বল এবং আল্লাহ্‌ তা’আলা কতটা শক্তিশালী।  চোখে দেখি না, স্পর্শ করতে পারি না, উপলব্ধি করতে পারছি না, এমন একটি ভাইরাস সারা পৃথিবীর মানুষকে ঘরের মধ্যে আবদ্ধ করে রেখেছে। ঘর থেকে তারা বের হতে পারছে না। সে যতবড় শক্তিশালীই হোক না কেন অথবা যত দুর্বলই হোক না কেন, সবাই কিন্তু এখন একই কাতারে চলে এসেছে।  কিন্তু এগুলো দিয়ে তো আল্লাহ্‌ তা’আলা আমাদের পরীক্ষা করছেন কিংবা আমাদের জন্য শাস্তিস্বরূপ আল্লাহ্‌ তা’আলা এগুলো পাঠাচ্ছেন।  আমাদের আবার হুঁশ ফিরিয়ে আনার জন্যে আল্লাহ্‌ তা’আলা এমন আয়োজন করছেন। এখন আমরা কতটুকু হুঁশ ফিরে পাচ্ছি, সেটাই হচ্ছে এখনকার আলোচিত বিষয়।

কিন্তু মৌলিক প্রশ্ন হচ্ছে এই যে, অ্যালকোহলযুক্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজার যেমনঃ হেক্সিসল, সেপ্নিল ইত্যাদি।এগুলো ব্যবহার জায়েজ কি না এবং জামায় লাগলে সেই জামায় সালাত আদায় ঠিক কি না?

মনে রাখতে হবে, এটি ইসলামের একটি মূলনীতি। কুরআন এবং হাদিস চষে ওলামায়ে কেরাম এই মূলনীতিটি বের করেছেন যে, “প্রয়োজন যখন হয়, নিষিদ্ধ জিনিসটিও ব্যবহার করা যায়”। কুরআনে আল্লাহ্‌ তা’আলা বলেছেন,

“কেউ যদি বাধ্য হয়ে কোন অন্যায় কাজ করে এবং আল্লাহ্‌-রাসূলের উদ্দেশ্যে কোন বিদ্রোহ অথবা সীমা লঙ্ঘনের উদ্দেশ্যে না করেন, তাহলে তার কোন অপরাধ হবে না”। (সূরা বাকারা ১৭৩)

অন্য আয়াতে আল্লাহ্‌ তা’আলা বলেছেন,

“কেউ তার ঈমান আনার পর আল্লাহ্‌র সাথে কুফরী করলে এবং কুফরীর জন্য হৃদয় উন্মুক্ত রাখলে তার উপর আপতিত হবে আল্লাহ্‌র গজব এবং তার জন্য রয়েছে আল্লাহ্‌র মহা শাস্তি। তবে তার জন্য নয়, যাকে কুফরির জন্য বাধ্য করা হয় কিন্তু তার চিত্ত ঈমানে অবচলিত”। (সূরা নহল ১০৬)

তাই, এখন করোনা ভাইরাস’র জন্য এক ধরনের সেফটি আমাদের গ্রহণ করতে হবে এবং আত্মরক্ষামূলক কিছু কাজ আমাদের করতে হবে এবং এটা কুরআন ও সুন্নাহ নির্দেশিত। রাসুল (সাঃ) বলেন,

“তোমরা চিকিৎসা ব্যবস্থা গ্রহণ কর, কেননা- মহান আল্লাহ্‌ একমাত্র বার্ধক্য ছাড়া সকল রোগেরই ঔষধ সৃষ্টি করছেন”। (আবু দাউদ ৩৮৫৫)

যদি হালাল কোন চিকিৎসা থাকে, তাহলে হারাম কোন কিছু দিয়ে চিকিৎসা গ্রহণ করা যায় না কিন্তু যদি হালাল কিছু না থাকে, একমাত্র ওইটাই চিকিৎসা, তাহলে সেটা দিয়ে চিকিৎসা গ্রহণ আমাদের জন্য জায়েজ আছে। কুরআন এবং সুন্নাহ আমাদেরকে সেই বক্তব্য দিয়েছে। আমরা যদি মনে করি, ওষুধে অ্যালকোহল আছে এবং অ্যালকোহল হারাম, অথচ এখানে ব্যক্তি তা গ্রহণে বাধ্য, তাহলে তিনি তা গ্রহণ করতে পারবেন। কিন্তু তার অন্তরে এই ঘৃণা থাকতে হবে যে এটি হারাম এবং আমি যখনই সুস্থ হয়ে যাব তখন থেকে আর স্পর্শ করবো না। ততটুকুই তিনি ব্যবহার করবেন, যতটুকু তার জীবন রক্ষা করার জন্য প্রয়োজন এবং জরুরি। দ্বিতীয়ত, আল্লাহ্‌ তা’আলা বলেছেন,

“হে ঈমানদারগণ ! তোমরা যখন নেশাগ্রস্থ থাকো তখন নামাযের ধারের কাছেও যেও না”। (সূরা নিসা ৪৩)

অর্থাৎ এর মধ্যে মাতলামি বা ইনটক্সিকেশন আছে বা যা মানুষকে মাতাল বানিয়ে দেয় তা হারাম। অন্য জায়গায় আল্লাহ্‌ তা’আলা বলেছেন,

“যে সকল পানীয়, যা নেশা সৃষ্টি করে, তা হারাম”। (বুখারী ২৪২)

এটি তো আসলে মাতাল বানায় না মানুষকে, কিন্তু মনে রাখতে হবে এটি খাওয়া নিষিদ্ধ।  এটির অন্য কোন ব্যবহার নিষিদ্ধ, তা কিন্তু বলা হয়নি কোথাও।  আল্লাহ্‌ তা’আলা বলেছেন খাওয়া নিষিদ্ধ। কোরআন এ আছে,

“হে মুমিনগণ !! নিশ্চয়ই মদ, জুয়া, প্রতিমা-বেদী ও ভাগ্য নির্ধারক তীরসমূহ তো নাপাক শয়তানের কর্ম। সুতরাং তোমরা তা পরিহার কর, যাতে তোমরা সফলকাম হও”। (সূরা মায়িদাহ ৯০)

যেহেতু এগুলো আমাদের জন্য অপবিত্র, সেই অর্থে এগুলো যদি আমাদের হাতে লাগে অথবা আমাদের শরীরে যদি লাগে, তাহলে হাতটি পরবর্তীতে ধুয়ে নেয়া অথবা জামা কাপড় পরবর্তীতে ধুয়ে নেয়ার বিধান রয়েছে, ধুয়ে নেয়াটাই আমাদের জন্য উত্তম। এবং যেহেতু অধিকাংশই বলেছেন, এগুলো নাজায়েজ অর্থাৎ অপবিত্র, সেহেতু এটিকে ধুয়ে নিয়ে সালাত আদায় করা (তার আগে তো অযু আমরা অবশ্যই করব) আমাদের জন্যে কল্যাণকর এবং অপবিত্রতা থেকে আমাদের পবিত্র হওয়ার যে নির্দেশনা, সে নির্দেশনার উপর আমরা থাকব ইনশা আল্লাহ।

ইসলামি বিধি-বিধান ও মাসআলা-মাসায়েল সম্পর্কিত যে বইগুলো পড়তে পারেন ।

*কোরআন এবং হাদিসের আলোকে বিষয়টি ব্যাখ্যা করেছেন, শাইখ মোখতার আহমাদ

আরোও পড়ুনঃ
তাওহিদ ও শিরক তথা একত্ববাদ ও অংশীদারিত্ব
ইসলাম নিয়ে লেখা অমুসলিম লেখকদের যে ৪টি বই আপনাকে চমকে দেবে
নববী যুগ থেকে বর্তমান পর্যন্ত ইসলামের শ্বাসরুদ্ধকর ইতিহাস

 

Rokomari Editor

Rokomari Editor

Published 05 Dec 2018
Rokomari is one of the leading E-commerce book sites in bangladesh
  0      0
 

comments (0)

Leave a Comment

You May Also Like This Article

Rokomari-blog-Logo.png