প্রোগ্রামিং শেখার ১২ টি টিপস্

প্রোগ্রামিং

প্রথম প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ হিসেবে সি (C) বেশ জনপ্রিয় ও বহুল ব্যবহৃত। বিভিন্ন প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় (স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে) সি ব্যবহার করা হয়। কলেজে আইসিটি কোর্সের সি ব্যবহার করা হয় এবং বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয়েও প্রথম প্রোগ্রামিং কোর্সে সি ব্যবহার করা হয়। সি ভালোভাবে শিখতে গিয়ে অনেকেই নানান সমস্যায় পরে। তাই আমার অভিজ্ঞতা থেকে কিছু পরামর্শ দিলাম।

০) কোর্স পাশ করা কিংবা একটা বই পড়ে শেষ করা উদ্দেশ্য নয়, সেটা বুঝতে হবে। কম্পিউটার সায়েন্সে পড়ে প্রোগ্রামিং ঠিকমতো না শিখলে সারা জীবন ভুগতে হবে। প্রোগ্রামিং কোর্সে এ প্লাস পাওয়া আর প্রোগ্রামিং শেখা এক জিনিস নয় – এই জিনিস মাথায় গেঁথে নিতে হবে।

১) প্রোগ্রামিংয়ের পেছনে নিয়মিত সময় দিতে হবে। একটানা কয়েকঘণ্টা (২ থেকে ৫ ঘণ্টা)। সপ্তাহে কমপক্ষে ৫ দিন। এভাবে মাসের পর মাস। প্রোগ্রামিং করার সময় অন্য কিছু, যেমন টিভি দেখা, খেলা দেখা, ফেসবুক – এসব করা যাবে না।

২) প্রথমে একটা বিষয় পড়ে বোঝার চেষ্টা করতে হবে। প্রথম পড়াতেই পুরোটা বুঝতে পারা যাবে না (বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই) এবং তাতে কোনো অসুবিধা নেই। যেকোনো একটা বই দিয়ে শুরু করতে হবে এবং বইয়ের প্রত্যেকটা উদাহরণ নিজে প্রোগ্রাম লিখে চালিয়ে দেখতে হবে।

কম্পিউটার প্রোগ্রামিং ২ খন্ড একসাথে এখানে

৩) প্রোগ্রামিংয়ে অনেক সময়ই কেন হয় প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে না (আসলে পাওয়া যাবে, তবে অনেক পরে, কখনও কয়েক মাস পরে, কখনও আরো বেশি সময় পরে)। যেমন: scanf ফাংশনে ভেরিয়েবলের আগে & চিহ্ন কেন ব্যবহার করা হয়, সেটা নিয়ে শুরুতে বেশি মাথা ঘামানো দরকার নাই। কিভাবে ব্যবহার করতে হয়, সেটা জানলেই হবে। তবে প্রোগ্রামিং শিখতে থাকলে একসময় এর উত্তর পেয়ে যাবে। শুরুতে কী করলে কী হয়, সেটাই গুরুত্বপূর্ণ। এজন্য বেশি বেশি প্রোগ্রাম লিখতে হবে, এবং প্রোগ্রামিং করার সময় পূর্ণ মনোযোগ দিতে হবে।

৪) কোনো কিছু মনে রাখার চেষ্টা করা, কিংবা মুখস্থ করার চেষ্টা করার দরকার নাই। প্রোগ্রামিং এত বেশি প্র্যাকটিস করতে হবে যে মুখস্থ না করে বিষয়টা নিজের আয়ত্বে এসে যাবে। ক্রিকেট খেলায় যেমন কোন ধরনের বলে কোন শট খেলতে হয়, সেটা কেউ মুখস্থ করে না, বরং প্র্যাকটিস করতে করতে আয়ত্বে চলে আসে – এরকম আর কী।

৫) লজিক জিনিসটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও সহজ। কিন্তু আমাদের সবাই প্রোগ্রামিং শিখতে আসলে এখানে ধাক্কা খাই। কারণ আসলে তো আমরা সারাজীবন মুখস্থ করে এসেছি, চিন্তাভাবনা করে কিছু করি নাই ও শিখি নাই, আর সমসময়ই শিক্ষক বলে দিয়েছেন যে কী করতে হবে। তাই শুরুতে ধাক্কা খেলে হতাশ হওয়া চলবে না, বরং ধৈর্য্য রাখতে হবে, চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে।

৬) যেই বই দিয়েই সি শেখা শুরু কর না কেন, সেটা দুইবার পড়তে হবে (এবং সেই বইতে যা বলা হয়েছে, তা করতে হবে)। তারপরে কমপক্ষে আরো একটা বই পড়তে হবে।

৭) ক্লাসের পরীক্ষায় (মানে প্রোগ্রামিং কোর্সের পরীক্ষায়) কম নাম্বার পেলে মন খারাপ করা চলবে না। কে কতটুকু প্রোগ্রামিং পারে সেটা আসলে পরীক্ষায় যাচাই করা খুব কঠিন।

৮) i++, ++i এসব জিনিস নিয়ে শুরুর দিকে মাথা ঘামানো মানে সময় নষ্ট করা, যদিও এটা পরীক্ষায় অনেক শিক্ষকেরই প্রিয় প্রশ্ন। ভেরিয়েবল, কন্ডিশনাল লজিক, লুপ, অ্যারে, ফাংশন – এসব জিনিস ভালোভাবে শিখতে ও এগুলো ব্যবহার করতে পারতে হবে।

৯) সি মোটামুটি শেখা হয়ে গেলে সি দিয়ে যেকোনো ওয়েবসাইট থেকে ৫০-১০০ টা সমস্যা সমাধান করতে হবে, তাহলে হাত ও মাথা পাকবে।

১০) আমি সি পুরোটা শিখতে চাই – এই টাইপ চিন্তাভাবনা থেকে বের হয়ে আসতে হবে। আমার মতে, এটা বোকার মত চিন্তা। পুরোটা সি শেখা বলতে আসলে তুমি কী বোঝাও, সেটা নিজেই জান না। অনেকে সি দিয়ে গ্রাফিক্যাল ইউজার ইন্টারফেস (গুই – GUI) সমৃদ্ধ সফটওয়্যার বানাতে চায়, যেটা আসলে না করলেই ভালো। কারণ এতে পরিশ্রম বেশি হয়, শেখা কম হয়। প্রোগ্রামিং শিখতে থাকলে একসময় গুই বানানোর অনেক টুলসের সাথে পরিচিত হবে, তাই অস্থির হওয়ার কিছু নেই।

১১) প্রোগ্রামিং কনটেস্টে অংশ নিতে হবে। প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় ভালো করতে পারলে তো ভালো, কিন্তু ভালো করতে না পারলেও ক্ষতি নেই। ভালো করার জন্য যেই চেষ্টা – সেটা করতে গিয়েই অনেক কিছু শিখতে পারবে যেটা তোমাকে ভবিষ্যতে একজন দক্ষ সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হতে সহায়তা করবে।

প্রোগ্রামিং নিয়ে আনন্দে সময় কাটুক সবার!

নোট: প্রোগ্রামিং শুরু করার আরো কিছু গাইডলাইন এখানে আছে : http://programabad.com/questions/1447/-

বাংলাদেশী প্রোগ্রামারদের কাছে একটি জনপ্রিয় নাম তামিম শাহরিয়ার সুবিন। বাংলাদেশী প্রোগ্রামারদের জন্য সহজ বাংলা ভাষায় তিনি লিখেছেন বিভিন্ন প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজের জনপ্রিয় সব বই। তার সবগুলো বই দেখতে পাবেন এই লিঙ্কে

 

আরও পড়ুনঃ 

কলমের ইতিবৃত্ত

ইংরেজী শেখার সেরা ৩ বই

যে ৫ টি কাজ খুলে দিতে পারে আপনার সম্ভাবনার দুয়ার

আরো সহজে ফটোশপ শিখুন!

rokomari

rokomari

Rokomari.com is now one of the leading e-commerce organizations in Bangladesh. It is indeed the biggest online bookshop or bookstore in Bangladesh that helps you save time and money.

Leave a Comment

Rokomari-blog-Logo.png
Join our mailing list and get the latest updates
Loading