টেনিদার বায়োগ্রাফিঃ যেমন ছিল কাল্পনিক চরিত্রটি !

টেনিদা

টেনিদানারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়ের সৃষ্ট একটি কাল্পনিক চরিত্র। এই চরিত্রটি এতই জনপ্রিয় ছিল যে, নারায়ন গঙ্গোপাধ্যায়ের মৃত্যুর পর তাঁর স্ত্রী আশা দেবীও কলম ধরেছিলেন, পাঠকদের অনুরোধে লিখেছিলেন টেনিদা। তাঁর হাত দিয়ে ‘টেনিদার অজলাভ’ উপন্যাস ও কয়েকটি ছোটগল্পও বেরিয়েছে। চলুন এক নজরে জেনে আসি টেনিদাকে।

পূর্ণ নাম– ভজহরি মুখার্জি।

ডাকনাম– টেনি, ভজা।

লিঙ্গ– পুরুষ।

ধর্ম– হিন্দু।

পড়াশোনা

পড়াশোনায় তেমন ভালো ছিলেন না। সাত বারের চেষ্টাতে মাধ্যমিক পরীক্ষায় পাশ করেছিলেন তিনি। বার বার পরীক্ষায় ফেল করার পরও তার সেটা নিয়ে কোন আফসোস নেই। বরং গর্ব করে বলে, পাশ তো সবাই করে যায় কিন্তু ফেল কয়জন করতে পারে?

চরিত্র

টেনিদা মূলত উত্তর কলকাতার পটলডাঙায় বসবাসরত একটি স্থানীয় চরিত্র। পটলডাঙার আশেপাশে বসবাসরত চার তরুণ ছেলেদের একটি দলের নেতা তিনি। তার ধ্যান জ্ঞান হচ্ছে খাওয়া। পরের পয়সায় খাওয়া আর সেই সাথে পরোপকার করা। গড়ের মাঠে গোরা ঠেঙ্গিয়ে এবং মোহনবাগান হারলে রেফারি পিটিয়ে স্বনামধন্য। কারো অসুখ হলে টেনিদা নিজের স্বাস্থ্যঝুকি অগ্রাহ্য করে সারিয়ে তুলবেন অন্যদের। বস্তিতে আগুন লাগলে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আটকে পড়া শিশুকে উদ্ধার করবেন। যেমন চওড়া বুক- তেমনি চওড়া মন তার। লোকের উপকারে এক মুহুর্তের জন্যেও তার ক্লান্তি আসে না। মুখে হাসি লেগেই থাকে। ক্রিকেট মাঠের ক্যাপ্টেন। ফুটবল মাঠের ত্রাস।

যে জন্য বিখ্যাত

টেনিদা বিখ্যাত ছিলেন তার খাঁড়ার মত নাকের জন্যে, গড়ের মাঠে গোরা পেটানোর জন্যে। 

বিখ্যাত সংলাপ

ডি-লা গ্রান্ডি মেফিস্টোফিলিস ইয়াক ইয়াক।

পার্শ্ব চরিত্রগুলো

অবকাশরঞ্জনী নামের বাদুড়, স্বামী বিটকেলানন্দ, খগেন মাশ্চটক, ঘচাং ফু, শেঠ ঢুন্ডুরাম, গজেশ্বর গাড়ুই, ম্যাকাদিনি বেনিহিতো অ্যাসপারাগাস ডি প্রোফান্ডিস ওরফে হনুলুলুর মাকুদা, বিচ্ছু কম্বল, চন্দ্রবদন চম্পটী, ঝুমুরলাল চৌবে চক্রবর্তী যে কিনা তাদের বলে ছিল -তোমরা হচ্ছ আমার ছোট ভাইয়ের মত, আদর করে কান-টান মলে দিলেই বা কী করতে পারতে! তার বন্ধু কিংবা ঝাউ বাংলোর রহস্যে সাতকড়ি সাঁতরা , তার বাবা পাঁচ কড়িসাঁতরা, ঠাকুরদা তিন কড়ি সাঁতরা, এককড়ি সাঁতরা।

ফুটবল ক্লাবের নামগুলো

ঘুঁটে পুকুর ফুটবল ক্লাব, চিংড়িহাটা হিরোজ, চোরাবাগান টাইগার ক্লাব, পটলডাঙ্গা থান্ডার ক্লাব, বাবা কচুবনেশ্বর, নেংটিশ্বরীর লেজ! 

উপন্যাসে আবির্ভাব

টেনিদাকে নিয়ে ‘চার মূর্তি‘ নামে নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায় প্রথম উপন্যাস লেখেন যা ১৯৫৭ খ্রিষ্টাব্দে ‘অভ্যুদয় প্রকাশ মন্দির’ থেকে গ্রন্থাকারে প্রকাশিত হয়। পরের উপন্যাস ‘চার মূর্তির অভিযান’ ১৯৬০ খ্রিষ্টাব্দের জুলাই মাসে গ্রন্থাকের প্রকাশিত হয়। এই উপন্যাসের দ্বিতীয় পরিচ্ছেদে টেনিদার আসল নাম যে ভজহরি মুখার্জি তা জানা যায় এবং তাঁর বিখ্যাত স্লোগান ‘ডি-লা-গ্রান্ডি মেফিস্টোফিলিস ইয়াক্ ইয়াক্’ এই উপন্যাসেই প্রথম শোনা যায়। নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায় টেনিদাকে নিয়ে যে সমস্ত উপন্যাস লিখেছেন, সেগুলি হল- চার মূর্তি, চার মূর্তির অভিযান, কম্বল নিরুদ্দেশ, টেনিদা আর সিন্ধুঘোটক, ঝাউ-বাংলোর রহস্য। এছাড়াও নারায়ন গঙ্গোপাধ্যায়ের মৃত্যুর পর তাঁর স্ত্রী আশা দেবী কলম ধরেছিলেন টেনিদা পাঠকদের অনুরোধে। তাঁর হাত দিয়ে ‘টেনিদার অজলাভ’ উপন্যাস ও কয়েকটি ছোটগল্পও বেরিয়েছে। পটলা, মুসুরী ইত্যাদি চরিত্র সঙ্গ দিয়েছে টেনিদাকে। 

নাটিকায় আগমন

টেনিদাকে নিয়ে নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায় ‘পরের উপকার করিও না’ নামে একটিমাত্র নাটক রচনা করেছেন। নাটকটি তাঁর ‘পরের উপকার করিও না’ গল্পের নাট্যরূপ। এই নাটকে টেনিদা তার আসল নাম ভজহরি মুখোপাধ্যায় নামে উপস্থাপিত হয়েছে। নাটকের অন্যান্য চরিত্ররা তাকে টেনিদা নামে না ডেকে ভজাদা নামে সম্বোধিত করেছে।

ছোটগল্পে উপস্থিতি

টেনিদা সবচেয়ে বেশি উপস্থিত হয়েছেন ছোটগল্পে। গল্পগুলো হচ্ছে- একটি ফুটবল ম্যাচ, দধীচি, পোকা ও বিশ্বকর্মা, খট্টাঙ্গ ও পলান্ন, মৎস্য-পুরাণ, পেশোয়ার কী আমীর, কাক-কাহিনী, ক্রিকেট মানে ঝিঁঝিঁ, পরের উপকার করিও না, চেঙ্গিস আর হ্যামলিনের বাঁশিওয়ালা, ঢাউস, নিদারুণ প্রতিশোধ

তত্ত্বাবধান মানে-জীবে প্রেম, দশাননচরিত,দি গ্রেট ছাঁটাই, ক্যামোফ্লেজ, কুট্টিমামার হাতের কাজ, সাংঘাতিক, বন-ভোজনের ব্যাপার, কুট্টিমামার দন্ত কাহিনী, প্রভাতসঙ্গীত, ভজহরি ফিল্ম কর্পোরেশন, চামচিকে আর টিকিট চেকার, ব্রহ্মবিকাশের দন্তবিকাশ, টিকটিকির ল্যাজ, বেয়ারিং ছাঁট, কাঁকড়াবিছে, হনোলুলুর মাকুদা, হালখাতার খাওয়াদাওয়া, ঘুঁটেপাড়ার সেই ম্যাচ, টেনিদা আর ইয়েতি, একাদশীর রাঁচি যাত্রা, ন্যাংচাদার হাহাকার, ভজগৌরাঙ্গ কথা

পরিসংখ্যান

টেনিদাকে নিয়ে লেখা হয়েছে মোট ৫টি উপন্যাস, ৩২টি গল্প আর ১টি নাটিকা। এ ছাড়াও তৈরি হয়েছে কমিকস, মুভি ও অ্যানিমেটেড সিরিজ।

টেনিদা সিরিজের সব বই  একত্রে  টেনিদা সমগ্র কিনতে ক্লিক করুন !

আরও পড়ুনঃ 

মিসির আলি – রহস্যময় কাল্পনিক চরিত্রটির খুঁটিনাটি !

তিন গোয়েন্দা সিরিজের ভেতর-বাহির। জেনে নিন

rokomari

rokomari

Published 29 Jan 2018
Rokomari.com is now one of the leading e-commerce organizations in Bangladesh. It is indeed the biggest online bookshop or bookstore in Bangladesh that helps you save time and money.
  0      0
 

comments (0)

Leave a Comment

Rokomari-blog-Logo.png